শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৩ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ মার্চ, ২০২০ ২৩:৩৬

মোদিকে স্বাগত জানানোর আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক

মোদিকে স্বাগত জানানোর আহ্বান

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসছেন মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। অতিথির সঙ্গে বাংলাদেশের মানুষ ভালো ব্যবহার করবে- এটাই তারা আশা করে। আমাদেরও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে স্বাগত জানানো উচিত। আমি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাব, প্রতিরোধের  চিন্তা ছেড়ে তাকে স্বাগত জানাতে। তিনি বলেন, আমরা মনে করি, যারা এটা করছেন, তাদের করাটা উচিত হচ্ছে না। গতকাল সচিবালয়ে সড়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা ও ভারতের হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাশকে পাশে রেখে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সেতুমন্ত্রী। আগামী ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধন পর্বে যোগ দিতে নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরের প্রস্তুতি হিসেবে গতকাল ঢাকায় আসেন শ্রিংলা। বিকালে সচিবালয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে  প্রতিহতের ডাক দেওয়ায় আমরা মোটেই বিব্রত নই। তিনি বলেন, রিঅ্যাকশন প্রকাশ করছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও মতের লোকজন। এখানে রিলিজিয়াসলি বিষয়টি অনেকে দেখছে। এটা সব সময় ছিল, আজও আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে। কাজেই সম্পর্ক এর মধ্যেই এগিয়ে যাবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে তিনি আসছেন, আমাদের সম্মানিত অতিথি হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের প্রধান মিত্র প্রতিনিধি হিসেবে।

মোদির সফর প্রতিহতের ঘোষণার বিষয়ে আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, না, হর্ষবর্ধন শ্রিংলা এটা নিয়ে কোনো কিছু বলেননি। তারা মনে করেন, এটি ভালো সফর হবে এবং বাংলাদেশের জনগণ ’৭১ এর বন্ধনকে স্মরণ করে ভালোভাবে নেবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা হাইয়েস্ট লেভেলের একটা সফর। ভারতের প্রধানমন্ত্রী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। পরদিন দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় বসবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে।

কী আলোচনা হবে তা তো এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। এ ভিজিটে সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা সাংবাদিকদের বলেন, ভারতের নাগরিকপঞ্জি হালনাগাদের বিষয়টি বাংলাদেশের জনগণের ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না। আগে বাংলাদেশে হাইকমিশনারের দায়িত্ব পালন করে যাওয়া এই কূটনীতিক বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের উন্নয়ন এক সূত্রে বাঁধা। আপনাদের উন্নতি মানেই আমাদের উন্নতি।


আপনার মন্তব্য