শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ মার্চ, ২০২১ ২৩:৪১

পদের প্রতি মোহ থাকলে উপাচার্য থাকা উচিত না

---------- এস এম এ ফায়েজ

পদের প্রতি মোহ থাকলে উপাচার্য থাকা উচিত না

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম এ ফায়েজ বলেছেন, সবচেয়ে মেধাবী ছাত্রটিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ দিতে পারছি কিনা এটি মনে রাখতে হবে। তাহলে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকের মনে থাকবে শুধু মেধার কারণেই তিনি নিয়োগ পেয়েছেন। তিনি রাজনীতির প্রতি সম্পৃক্তও থাকতে পারেন কিন্তু নিয়োগ হতে হবে একাডেমিক এক্সিলেন্সের ভিত্তিতে। এভাবে যারা নিয়োগ লাভ করে তারা মান বজায় রাখে। দায়বদ্ধ থাকে বিবেকের কাছে। সরকার তার পছন্দের ব্যক্তিকে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ করবে এটি অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু তাকে মনে রাখতে হবে তার দায়বদ্ধতা বিবেকের কাছে, চেয়ারের মর্যাদা সবকিছুর ঊর্ধ্বে। চেয়ারের মর্যাদা অক্ষুণœ রাখতে কোনো লোভ-লালসা তার কাজ করবে না। দুর্নীতি তাকে স্পর্শ করবে না। তিনি ছাত্র-শিক্ষক-কর্মকর্তাদের কাছে থাকবেন রোল মডেল হয়ে। অন্য কোনোভাবে প্রভাবিত হলে বিবেক তাকে দংশন করবে। দল-মত নির্বিশেষে তাকে মেধার লালন করতে হবে। দুর্নীতির বাইরে যদি তাকে রাখতে না পারে তবে তার এক মুহূর্ত থাকার সুযোগ নেই। যদি কেউ লবিংয়ের মাধ্যমে উপাচার্য হওয়ার চেষ্টা করে সেটা হওয়া উচিত সবচেয়ে বড় অযোগ্যতা। পদের প্রতি মোহ থাকবে না, মোহ থাকবে শিক্ষকতার প্রতি। পদের প্রতি মোহ থাকলে তার উপাচার্য থাকা উচিত নয়। উপাচার্যকে সমালোচনার মুখে পড়তে হয় এমন অভিযোগের সত্যতা থাকলে এক মুহূর্তও দেরি করা নয় রিজাইন করার ক্ষেত্রে।

গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপচারিতায় অধ্যাপক ড. এস এম এ ফায়েজ আরও বলেন, একজন অধ্যাপকের ওপর যদি কোনো প্রশাসনিক দায়িত্ব আসে তবে তিনি তা পালন করবেন মান-মর্যাদা বজায় রেখে। শিক্ষকতা ছাড়া তার কোনো পদের প্রতি মোহ থাকা উচিত নয়। একজন অধ্যাপকের আর বেশি মর্যাদা কী হতে পারে! অধ্যাপক উপাচার্য হলে সবার প্রতি ন্যায়বিচার করতে হবে। তিনি যদি কোনো শিক্ষক-কর্মকর্তা বা কর্মচারী নিয়োগ দেন, তবে মেধাকে এ ক্ষেত্রে প্রাধান্য দিতে হবে। দল-মতের ঊর্ধ্বে উঠে দায়িত্ব পালন করতে হবে। দুর্নীতি যেন তাকে স্পর্শ না করে সেটি নিশ্চিত করতে হবে। সাবেক এ উপাচার্য বলেন, ‘উপাচার্যের পদ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ পদে নিয়োগদানের আগে কর্তৃপক্ষকে বিবেচনা করতে হবে, কোন ব্যক্তি আসলে উপযুক্ত সেই পদের জন্য। উপাচার্য নিয়োগের জন্য যোগ্য ব্যক্তিকে খুঁজে বের করতে হবে। উপাচার্যের আকর্ষণ থাকবে মেধার প্রতি, পদের প্রতি নয়, ন্যায়বিচার করার জন্য অবিচল থাকতে হবে উপাচার্যকে। পদের মর্যাদা অবশ্যই বজায় রাখতে হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর