শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৯ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মে, ২০২১ ২৩:৩৪

ঢালাওভাবে বিদেশি পরামর্শক নিয়োগ নয় : প্রধানমন্ত্রী

নতুন অর্থবছরে ২ লাখ ৩৭ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢালাওভাবে বিদেশি পরামর্শক নিয়োগ নয় : প্রধানমন্ত্রী
Google News

উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে ঢালাওভাবে বিদেশি পরামর্শক নিয়োগ না করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, পরামর্শক যতখানি দরকার ততটাই নেওয়া হবে। ঢালাওভাবে নয়।

গতকাল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন। আসন্ন ২০২১-২২ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) অনুমোদন দিতে এনইসি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল সাড়ে ১০টায় এনইসি চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শেরেবাংলানগর এনইসি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। এ ছাড়া সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকেও কয়েকজন মন্ত্রী ও সচিব বৈঠকে সংযুক্ত হন।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চোখ বন্ধ করে পরামর্শক নেওয়া যাবে না। যাচাই-বাছাই করে কেবল প্রয়োজনের তাগিদেই পরামর্শক নিয়োগ দিতে হবে।

এনইসি সভায় নতুন অর্থবছরে (২০২১-২২) ১ হাজার ৫১৫টি প্রকল্পের অনুকূলে ২ লাখ ৩৬ হাজার ৭৯৩ কোটি ৯ লাখ টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা তুলে ধরে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ঢালাওভাবে বিদেশি পরামর্শক নিয়োগ না দেওয়ার কথা বলেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা তুলে ধরে পরিকল্পনা মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রকল্পগুলোকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে দ্রুততার সঙ্গে শেষ করতে বলেছেন। এর মধ্যে জনসম্পৃক্ত প্রকল্পগুলোর দিকে তিনি বিশেষ নজর দিতে বলেছেন। গবেষণার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন। প্রত্যেক মন্ত্রণালয় যেন তার গবেষণা খাতের বরাদ্দ যথাযথভাবে খরচ করে সেটা দেখতে বলেছেন। পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, সব খাতে গবেষণার জন্য আলাদা বরাদ্দ রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তাদের নিজেদের প্রয়োজনে গবেষণা করবে। কৃষি মন্ত্রণালয় করবে তাদের কৃষির প্রয়োজনে। এ জন্য প্রত্যেক সেক্টরে গবেষণার জন্য আলাদা ফান্ড থাকতে হবে। বেশি বেশি গবেষণা করতে হবে।

নতুন অর্থবছরে ২ লাখ ৩৭ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন : আসছে ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ২ লাখ ৩৬ হাজার ৭৯৩ কোটি ৯ লাখ টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা বা করপোরেশনের ১১ হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকার এডিপি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার এডিবি বাদে এডিপি আকার দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার ৩২৪ কোটি ১৪ লাখ টাকা; যা চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের সংশোধিত এডিবির চেয়ে ২৭ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা (১৪ শতাংশ) বেশি। স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার নিজস্ব প্রকল্প বাদে চলতি অর্থবছরের জন্য মূল এডিপি ছিল ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকা। পরে গত মার্চে ৭ হাজার ৫০২ কোটি টাকা কমিয়ে ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকায় সংশোধন করা হয়।

গতকাল সকালে ২০২১-২২ অর্থবছরের এডিপি খসড়া অনুমোদন দিতে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভা এনইসি চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। শেরেবাংলানগর এনইসি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। এ ছাড়া সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকেও কয়েকজন মন্ত্রী ও সচিব বৈঠকে সংযুক্ত হন। পরে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বিস্তারিত তুলে ধরেন।

তিনি জানান, এডিপিতে খাত হিসেবে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে। এ খাতের বরাদ্দ প্রায় ৬১ হাজার ৬৩১ কোটি টাকা (২৭.৩৫%)। অন্যদিকে একক প্রকল্প হিসেবে বেশি বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে। এ প্রকল্পে ১৮ হাজার ৪২৬ কোটি ১৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। এডিপিভুক্ত মোট প্রকল্পের সংখ্যা ১ হাজার ৫১৫টি বলে মন্ত্রী জানান। এডিপিতে দারিদ্র্য বিমোচন, জিডিপির প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিতকরণ, কর্মসংস্থান সৃজন ও মানবসম্পদ উন্নয়নসংশ্লিষ্ট প্রকল্পসমূহকে অগ্রাধিকার বিবেচনায় রেখে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। অর্থ বরাদ্দ প্রদানের ক্ষেত্রে কৃষি, শিল্প ও সেবা খাত প্রবৃদ্ধি, বিদ্যুৎ উৎপাদন, আইসিটি শিক্ষার উন্নয়ন, প্রাকৃতিক দুর্যোগে, ক্ষয়ক্ষতি পুনর্বাসনসংক্রান্ত প্রকল্প, সুষম উন্নয়নের লক্ষ্যে এলাকাভিত্তিক প্রকল্প ও সরকারি-বেসরকারি অংশীদারির ভিত্তিতে (পিপিপি) বাস্তবায়িত নতুন প্রকল্পসমূহকে অগ্রাধিকার প্রদান করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর