Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১১ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ মে, ২০১৯ ২৩:১০

বিমানবাহী জাহাজ লিংকনের সুয়েজ খাল অতিক্রম

ইরানকে চাপে রাখতেই যুক্তরাষ্ট্রের নানা কৌশল

বিমানবাহী জাহাজ লিংকনের সুয়েজ খাল অতিক্রম

ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ ইরাকে মার্কিন সৈন্য ও স্থাপনায় হামলা চালাতে পারে। আর এই গোয়েন্দা তথ্যের ওপর ভিত্তি করে রণতরী প্রস্তুত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের হামলার জবাব দিতে যুক্তরাষ্ট্র প্রয়োজনে হরমুজ প্রণালিতে রণতরী পাঠাবে বলে জানিয়েছেন মার্কিন নৌবাহিনীর বাহরাইনভিত্তিক নৌবহরের কমান্ডার ভাইস অ্যাডমিরাল জিম ম্যালয়।

এদিকে ইরানকে হুঁশিয়ার করতে পাঠানো মার্কিন এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার আব্রাহাম লিংকন মিসরের সুয়েজ খাল অতিক্রম করেছে। বৃহস্পতিবার এটি মিসরের মধ্য দিয়ে ইরানের উদ্দেশে চলে গেছে বলে জানিয়েছে সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষ। এর আগে দিনকয়েক আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন জানিয়েছেন, এই এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার ইরানের উদ্দেশে যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারি বার্তা হিসেবে পাঠানো হচ্ছে। গত সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার পাঠানোর অনুমোদন দেন। রয়টার্সকে মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গোয়েন্দা তথ্য রয়েছে যে, ইরাকে অবস্থানরত মার্কিন সেনাদের ওপর আক্রমণের পরিকল্পনা করছে ইরান। তাই ইরানকে চাপে রাখতে এই এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার পাঠানো হলো।

এদিকে মার্কিন নৌবাহিনীর বাহরাইনভিত্তিক নৌবহরের কমান্ডার ম্যালয় রয়টার্সকে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে গতকাল জানিয়েছেন, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা ইরানের তরফ থেকে ঝুঁকি দেখলে প্রয়োজনে হরমুজ প্রণালিতে রণতরী পাঠাতে পিছপা হবে না। তবে তিনি জানাননি যে, ইউএসএস আব্রাহাম লিংকন নামের রণতরীটি ইরানের এই জলপথে কবে নাগাদ পাঠাবেন। গুরুত্বপূর্ণ হরমুজ প্রণালি জ্বালানি সরবরাহে বিশ্বে পঞ্চম স্থানে রয়েছে। এদিকে ইরানকে হুমকি উল্লেখ করে মার্কিন গোয়েন্দা তথ্যকে ভুয়া বলে উড়িয়ে দিয়েছে ইরান। ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে পারমাণবিক চুক্তি করা ছয়টি দেশের মধ্যে বছরখানেক আগে যুক্তরাষ্ট্র তাদের নাম প্রত্যাহার করে  নেয় এবং দেশটির ওপর অর্থনৈতিক বিধিনিষেধ আরোপ করে। এতে দুই দেশের মধ্যে নতুন করে উত্তাপ সৃষ্টি হয়। মার্কিন প্রতিরক্ষা সদর দফতর পেন্টাগন জানিয়েছে, মার্কিন বাহিনীকে বা মার্কিন স্বার্থে আঘাত হানার পরিকল্পনা ইরানের রয়েছে বলে তাদের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আভাস দিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আব্রাহাম লিংকন রণতরী এবং বোমারু বিমান মধ্যপ্রাচ্যে মোতায়েন করা হয়েছে। জিম ম্যালয় বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র প্রকৃত যে কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করে, তার সঙ্গে গোয়েন্দা সংস্থা সম্পৃক্ত। আর সেটাই আমার জন্য যথেষ্ট ছিল... এটা বলার জন্য যে, আমরা এটাকে হুমকি হিসেবে দেখেছি।’


আপনার মন্তব্য