২৮ জুন, ২০২২ ২১:৩১

পশ্চিমবঙ্গের ঘোজাডাঙ্গায় মৈত্রী ভলিবল ম্যাচে বিএসএফকে হারালো বিজিবি

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

পশ্চিমবঙ্গের ঘোজাডাঙ্গায় মৈত্রী ভলিবল ম্যাচে বিএসএফকে হারালো বিজিবি

পশ্চিমবঙ্গের ঘোজাডাঙ্গায় মৈত্রী ভলিবল ম্যাচে বিএসএফকে হারালো বিজিবি

ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী বন্ধন মজবুত করতে সীমান্তে কর্তব্যরত ‌বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মধ্যে আয়োজন করা হলো মৈত্রী ভলিবল ম্যাচের। মঙ্গলবার বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বসিরহাট ঘোজাডাঙ্গা স্থলবন্দর সংলগ্ন মাঠে বিএসএফ (দক্ষিণবঙ্গ ফ্রন্টিয়ার) এবং বিজিবি যশোরের (দক্ষিণ-পশ্চিম জোন) মধ্যকার ফ্রেন্ডশিপ ভলিবল ম্যাচটির আয়োজন করা হয় বিএসএফ’এর তরফে।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিএসএফ আইজি (দক্ষিণবঙ্গ) অতুল ফুলঝেলে, ডিআইজি রাজেশ কুমার, ডিআইজি (জেনারেল) সুরজিৎ সিং গুলেরিয়া, বাংলাদেশের বিজিবির পক্ষে ব্রিগেডিয়ার ওমর সাদি, কর্নেল মামুনুর রশিদ, বিজিবির লেফটেন্যান্ট কর্নেল আনারুল মাজাহার প্রমুখ।

এই ভলিবল ম্যাচটি প্রত্যক্ষ করেন কলকাতা সফররত বাংলাদেশের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধি দলের ৬ সদস্য। ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে ভলিবল খেলা দেখতে ভিড় জমিয়েছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারাও।

এদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের পর ম্যাচের উদ্বোধন করা হয়। সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে ৯০ মিনিটের খেলায় টানটান উত্তেজনা ছিল। শেষ পর্যন্ত এই ম্যাচটিতে জয়ী হয় লাল-সবুজের দল বিজিবি। 

খেলা শেষে দুই দেশের খেলোয়াড়দের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয় বিএসএফ ও বিজিবির কর্মকর্তাদের তরফে। পরে উভয় দলের খেলোয়াড়দের নিয়ে একটি ফটোসেশনও অনুষ্ঠিত হয়। 

শেষে দুই দেশের কর্মকর্তারাই সীমান্ত সুরক্ষার প্রয়োজনে মৈত্রী বন্ধনকে অটুট করার ওপর জোর দেন। ভবিষ্যতেও তারা দুই দেশের সীমান্ত বাহিনীর মধ্যে এ ধরনের খেলার আয়োজনের প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করেন।

আগামী ৪ জুলাই বিএসএফ ও বিজিবির মধ্যে দ্বিতীয় মৈত্রী ভলিবল ম্যাচটি ৫৪ বাহিনী সীমান্ত পোস্ট গেদেতে অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে বিএসএফ দক্ষিণবঙ্গ ফ্রন্টিয়ারের আমন্ত্রণে সোমবারই বাংলাদেশের সাংবাদিকদের ওই প্রতিনিধি দলটি পেট্রাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। জিরো পয়েন্টে এই প্রতিনিধি দলের সদস্যদের ফুলের তোড়া দিয়ে স্বাগত জানান ডিআইজি সুরজিৎ সিং গুলেরিয়া। 

প্রতিনিধি দলের সফরসূচির মধ্যে রয়েছে সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন, সীমান্ত জনসংখ্যার সাথে কথা বলা, বিএসএফ কলকাতা সেক্টরের কিছু স্পর্শকাতর সীমান্ত চৌকি পরিদর্শন। ভারতে অবস্থানকালে প্রতিনিধি দলটি কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, ভারতীয় জাদুঘর, ইকো পার্ক, ওয়াক্স মিউজিয়াম, হাওড়া ব্রিজ পরিদর্শন করবে। 

সফরকারী প্রতিনিধি দলটি বাহিনীর এডিজি (স্পেশাল ডিজি হেডকোয়ার্টার, ইস্টার্ন কমান্ড) ওয়াই বি খুরানিয়া, আইজি (দক্ষিণবঙ্গ) ড. অতুল ফুলঝেলেসহ সিনিয়র কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করার সুযোগ পাবেন। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে আন্তঃসীমান্ত অপরাধ এবং বিএসএফ কীভাবে সীমান্ত নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে মূলত তা নিয়েই আলোচনা হবে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর