Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০৮

উপকমিটিতে উপাচার্য-অধ্যাপক

ব্যাখ্যা দিল আওয়ামী লীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্যাখ্যা দিল আওয়ামী লীগ

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক উপকমিটিতে চারজন উপাচার্য এবং বহু অধ্যাপক সদস্য হওয়ার খবরের ব্যাখ্যা দিয়েছে দলটি। তারা বলছে, এখন খসড়া তালিকা তৈরির কাজ চলছে। কিন্তু এটি চূড়ান্ত নয়। দলীয় সভানেত্রীর অনুমোদনের আগে একে উপকমিটি বলা যাবে না।

গতকাল দুপুরে আওয়ামী লীগের দফতর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আজ (গতকাল) বুধবার কয়েকটি দৈনিক পত্রিকায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও মানবসম্পদ উপকমিটি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রত্যেকটি বিভাগীয় উপকমিটি গঠনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ উপকমিটিও গঠন প্রক্রিয়া চলছে। কার্যত, এখন পর্যন্ত শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিভাগের উপকমিটি গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়নি। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে মাত্র। সে মোতাবেক শিক্ষা ও মানবসম্পদ উপকমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেক এবং সদস্য সচিব শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিভাগের অভিজ্ঞ ব্যক্তি ও সংশ্লিষ্ট বিভাগে আগ্রহী দলীয় নেতা-কর্মীদের সমন্বয়ে একটি উপকমিটি গঠনের নিমিত্তে খসড়া তালিকা প্রণয়নের কার্যক্রম শুরু করেছেন।’ বিজ্ঞপ্তিতে ক্ষমতাসীন দলটি জানায়, ‘প্রাথমিক যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়ার অন্তর্ভুক্ত নামসমূহকে কোনোভাবেই উপকমিটি বলা চলে না কিংবা খসড়া উপকমিটি হিসেবেও বিবেচনা করা যায় না। যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর একটি প্রস্তাবিত তালিকা সংগঠনের সভাপতি শেখ হাসিনার অনুমোদনের জন্য জমা দেওয়া হবে। দলের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আওয়ামী লীগ সভাপতি চূড়ান্ত তালিকা অনুমোদন করার পরই সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে গণমাধ্যমে পাঠানো হবে। অনুমোদনের পূর্বে এ ধরনের সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ জানায় আওয়ামী লীগ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর