শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ মে, ২০১৯ ২৩:২৪

আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ

প্রচারণায় দোষারোপ করে নানা মন্তব্য, আজ পঞ্চম ধাপে ভোট

গৌতম লাহিড়ী, নয়াদিল্লি

আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ

ভারতে আজ পঞ্চম দফার লোকসভা ভোট। তার আগেই প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতাসীন বিজেপি ও কংগ্রেসসহ বিরোধী শিবিরের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে রাজনৈতিক প্রচার তীব্র হয়ে দোষারোপের পর্যায়ে উঠেছে। চলছে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ। একদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এক জনসভায় সাবেক কংগ্রেস প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত রাজীব গান্ধীর নাম উল্লেখ করে বলেনÑ রাহুল গান্ধী, আপনার পিতার জীবন শেষ হয়েছে দুর্নীতির অভিযোগ দিয়ে। তার পাল্টা গতকাল কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এবং কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী আক্রমণ করেন প্রধানমন্ত্রীকে। বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদি আপনার কর্মকাল শেষ হয়ে গেছে। এবার আপনাকে কাজের ফল ভুগতে হবে। প্রিয়াঙ্কাও বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদি শহীদদের নামে ভোট চাইছেন। অথচ দেশের শহীদদের অপমান করছেন। আমেথির জনতা এর যোগ্য জবাব দেবে। যার জন্য রাজীব গান্ধী জীবন দিয়েছেন। আজই উত্তর প্রদেশের রায়বেরিলি ও আমেথির ভোট। এখানে সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিজেপির পক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। তিনি গতবার পরাজিত হন।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে ভারতে যথেষ্ট রাজনৈতিক জল ঘোলা হচ্ছে। রাজীব গান্ধী সন্ত্রাসবাদী তামিল টাইগারদের হাতে বোমা বিস্ফোরণে নিহত হন। রাজীব এই আমেথি থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতেন। প্রথমে সোনিয়া পরে রাহুল রাজনীতিতে আসার পর এখান থেকে চতুর্থবার সাংসদ নির্বাচিত হন। একদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী উত্তর প্রদেশে সমাজবাদী পার্টি ও মায়াবতীর বহুজন সমাজ পার্টির সমঝোতাকে সমালোচনা করে বলেছিলেন, সমাজবাদী পার্টি এবং কংগ্রেস মায়াবতীকে ভুল বোঝাচ্ছেন। এর কারণ হলো-আমেথি ও রায়বেরিলিতে এই দুই পার্টি সোনিয়া ও রাহুলকে সমর্থন করছে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে খ ন করে মায়াবতী বলেন, আমার দলের প্রত্যেকটি ভোট সোনিয়া ও রাহুলের পক্ষে যাবে। এতে স্বস্তিতে কংগ্রেস। ফলে পঞ্চম ধাপের ভোটের আগে বিরোধীরা এখন অনেকটাই একজোট। এতে বিজেপির শক্ত ঘাঁটি উত্তর প্রদেশে বেশ বেগ পেতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন রাজীব গান্ধী এক নম্বরের দুর্নীতিগ্রস্ত। রাহুল জবাব দিয়ে বলেন, আপনার নিজের চরিত্র আমার বাবার ওপর লেপনের চেষ্টা করে কোনো লাভ নেই। এর পরেও আমি আপনাকে আলিঙ্গন করতে চাই। উল্লেখ্য, এবার পার্লামেন্টে রাহুল বক্তৃতা শেষে প্রধানমন্ত্রীর আসনের দিকে গিয়ে জড়িয়ে ধরেছিলেন।

ইতিমধ্যে ভারতের নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে সব বিরোধী দল সোচ্চার। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করা সত্ত্বেও নির্বাচন কমিশন কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় তারা প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। তাদের অভিযোগ, বিরোধী দলের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন যতটা কঠোর অবস্থান নিচ্ছে ততটা বিজেপির বিরুদ্ধে নয়। ভারতে আজ ছয়টি প্রদেশের ৪৯টি লোকসভা কেন্দ্রে ভোট হবে। এর সঙ্গে ভারতের লোকসভার ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ৩৭৪টি আসনে ভোট হয়ে যাবে। এরপর আগামী ১২ এবং ১৯ মে শেষ দুটি ধাপে বাকি আসনের ভোট। ফল প্রকাশিত হবে ২৩ মে। আজকের ভোট হবে বিহারের ছয়টি, ঝাড়খে র ৪টি, মধ্যপ্রদেশের ৭টি, রাজস্থানের ১২টি, উত্তর প্রদেশের ১৪টি এবং পশ্চিমবঙ্গে ৭টি আসন।


আপনার মন্তব্য