শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:১২

১৫-২০ জন মিলে কুপিয়ে হাত কেটে নিয়েছে আমার

ইলিয়াস কাতরাচ্ছেন পঙ্গু হাসপাতালে

আলী আজম

১৫-২০ জন মিলে কুপিয়ে হাত কেটে নিয়েছে আমার

ময়মনসিংহ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কার্যকরী সদস্য ইলিয়াস নোমান। তিনি একজন ঠিকাদারি ব্যবসায়ী। বাড়ি গফরগাঁও থানার যশোরা গ্রামে। স্ত্রী মাহমুদা আক্তার এবং চার বছর বয়সী একমাত্র সন্তান ইসরাত জাহান নওশিনকে নিয়ে ভালোই চলছিল সংসার। কিন্তু তার এই সুখের সংসারে হঠাৎ করেই অন্ধকার নেমে এলো। ফিকে হয়ে গেল তার স্বপ্ন-সাধ। দুর্বৃত্তরা কেড়ে নিল বাম হাত। এখন সামনে কেবলই অন্ধকার। তার ঠিকানা হয়েছে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালের ২১৭ নম্বর বেড। গতকাল দুপুরে পঙ্গু হাসপাতালে কথা হয় ইলিয়াস নোমানের সঙ্গে। তিনি জানান, যশোরা গ্রামে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়ার কথা বলে লোকজনের কাছ থেকে প্রতিটি মিটার বাবদ ১০-১২ হাজার টাকা করে নেন ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি রেজাউল করিম সুমন। টাকা নেওয়ার তিন মাস পরও বিদ্যুৎ সংযোগ না দেওয়ার কারণ জানতে চাইলে নোমানের সঙ্গে সুমনের কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার ১০-১২ দিন আগে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি সারোয়ার জাহান ধনুর দুই অনুসারীকে মাদকসহ পুলিশ গ্রেফতার করে। এর পেছনে নোমানের হাত ছিল বলে সুমন ও ধনু অভিযোগ করেন। নোমান বলেন, দ্বিতীয় দফায় পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে যশোরা গ্রামের লোকজনের কাছ থেকে প্রতিটি মিটার বাবদ ৩ হাজার টাকার দাবি করে যুবলীগ নেতা সুমন। এর প্রতিবাদ করেছি। এরই জের ধরে ১ সেপ্টেম্বর সুমনের লোকজন নোমানকে শাসিয়ে যায়। পরদিন বিকালে স্থানীয় শিবগঞ্জ বাজার থেকে যশোরা গ্রামের বাড়িতে ফেরার সময় ১৫-১৬ জন আমাকে ঘিরে ধরে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে এবং পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে। তিনি বলেন, দুর্বৃত্তরা আমার হাতে, মুখে, পায়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। এখন বাম হাত নেই। দুই পায়ে ফুল ব্যান্ডেজ। অসহ্য যন্ত্রণা। বাম চোখও ক্ষতিগ্রস্ত। আমি আর যন্ত্রণা সহ্য করতে পারছি না। সেদিনের কথা মনে উঠলেই গা শিহরে উঠছে। সরেজমিনে পঙ্গু হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, নোমান বিছানায় শুয়ে আছেন। বসতে পারেন না। স্যালাইন চলছে।

এদিকে স্থানীয় সংসদ সদস্য ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল বলেন, হামলাকারীরা যে দলেরই হোক আইনের আওতায় আনার জন্য পুলিশকে বলা হয়েছে। ময়মনসিংহের এসপি শাহ আবিদ হাসান জানান, আসামি সারোয়ার জাহান ধুনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  সব আসামিকে দ্রুত ধরতে সক্ষম হব।


আপনার মন্তব্য