প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:২২

হাই কোর্টে জামিন মানব পাচার মামলার শিশু আসামি

নিজস্ব প্রতিবেদক

হাই কোর্টে জামিন মানব পাচার মামলার শিশু আসামি

মানব পাচারের এক মামলার কক্সবাজারের এক ‘শিশু’-কে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছে হাই কোর্ট। গতকাল হাই কোর্টে হাজির হয়ে জামিন আবেদনের পর বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহরিুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাই কোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। এ সময় ওই শিশুর মাও আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তবে ২০১৮ সালে করা এ মামলায় শিশুর বয়স দেখানো হয়েছে ২২ বছর।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জামান আক্তার বুলবুল। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন। পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বলেন, ‘একদম মাইনর ছেলে। সর্বোচ্চ ১২ বছর হবে। আদালত তাকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছে।’ শিশুটির আইনজীবী জামান আক্তার বুলবুল বলেন, ‘ঘটনা দেখানো হয়েছে ২০১৪ সালের। আর মামলা করেছে ২০১৮ সালে। কিন্তু এখন তার বয়স ১২ বছরের মতো।’

মামলার নথি থেকে জানা যায়, গত বছর রামুর হাজিপাড়ার বাসিন্দা নুরুল ইসলাম (৪১) চট্টগ্রামের নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনালে মানব পাচার প্রতিরোধ আইনে একটি পিটিশন মামলা করেন। মামলায় রামুর চাকমারকুল এলাকার ওই শিশুসহ ছয়জনকে আসামি করেন তিনি। ঘটনা দেখানো হয় ২০১৪ সালের ২০ জুন রাত এবং মামলা করা হয়েছে ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর। অভিযোগে বলা হয়, বিনা খরচে মালয়েশিয়ায় ভালো বেতনে কাজ দেবে বলে বাদীকে ওই বছরের ২১ জুন সাগরে ছোট নৌকা দিয়ে জাহাজে তুলে দেন আসামিরা। কয়েক দিন পরে জাহাজ থেকে থাইল্যান্ডের উপকূলীয় পাহাড়ের জঙ্গলে তাকে নামিয়ে দেয়। সেখানে দালালরা মারধর করে মুক্তিপণ দাবি করে। মোবাইল ফোনে স্বজনদের কাছ থেকে ওই শিশুসহ ১ ও ২ নম্বর আসামি ২ লাখ টাকা নেন। পরে আরও ১ লাখ টাকা নেওয়ার পর মালয়েশিয়া পৌঁছান নুরুল ইসলাম। ২০১৭ সালের জুন মাসে মালয়েশিয়ায় অভিযানকালে তিনি আটক হন। এক বছর জেল খাটার পর দেশে ফিরে এসে মামলা করেন তিনি। আইনজীবী জামান আক্তার বুলবুল বলেন, এ মামলা এখন সাক্ষীর পর্যায়ে আছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর