শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:২৫
আপডেট : ২০ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:৩০

‘বেওয়ারিশ গরু’র শিংয়ের গুঁতোয় পাল্টে যেতে পারে ভারতের ভোটের হিসেব

অনলাইন ডেস্ক

‘বেওয়ারিশ গরু’র শিংয়ের গুঁতোয় পাল্টে যেতে পারে ভারতের ভোটের হিসেব

ভারতে গরু যতদিন দুধ দেয় ততদিন ঘরের লক্ষ্মি বানিয়ে রাখেন মালিক। এছাড়া গোমাতা হিসেবে পূজাও চলে। কিন্তু দুধ দেওয়া শেষ হলেই সেই 'গোমাতাকে' ঘরছাড়া করা হয়। এসব গরু হয়ে যায় বেওয়ারিশ। এই গরু নিয়ে ভারতে গত কয়েক বছর ধরে নানান বিচিত্র ঘটনা ঘটেই চলেছে। ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিভিন্ন রাজ্যে গরু জবাই নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এতে গোটা ভারতে বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশে এই বেওয়ারিশ গরুর সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। 

এছাড়া গরু জবাই করার দায়ে বা এমন গুজব ছড়িয়ে এখন পর্যন্ত কয়েকশ মানুষকে হত্যা করেছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নেতাকর্মীরা। গরু জবাইয়ে নিষেধাজ্ঞার কারণে ভারতের লাখো কৃষক চোখের পানিতে ভাসছেন।

এদিকে, ভারতে ধাপে ধাপে চলছে লোকসভা নির্বাচন। সাত দফা নির্বাচনের দুই দফা ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। বাকি রয়েছে পাঁচ দফা। তাই যেকোনো সময়েই ভোটের হাওয়া পাল্টে যেতে পারে। এবারের নির্বাচনে ভোটের হিসেব পাল্টে দিতে পারে দেশটির এই বেওয়ারিশ গরু। খবর- টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

এছাড়া ভারতে এসব গরুকে রাখার জন্য সামান্য পরিমাণে গোশালা থাকলেও সেখানে গরু রাখতে নির্দিষ্ট পরিমাণে ফিস দিতে হয়। কিন্তু মালিকেরা এই ঝামেলায় না গিয়ে গরু ছেড়ে দেন। যেখানে খুশি চলে যাক। এসব গরুর জন্য গোশালা পর্যাপ্ত না-থাকায় কৃষকদের ক্ষোভ গিয়ে পড়ছে রাজ্য সরকারের ওপর। সরকার কেন গোশালা বানাচ্ছে না? হাল এতটাই খারাপ যে, বেওয়ারিশ গরু নিয়ে ক্ষোভ যদি ভোটের ফলাফলকে প্রভাবিত করে তা হলেও আশ্চর্যের কিছু নেই। 

দিল্লিতেও গরু নিয়ে সমস্যা বাড়ছে। রাস্তা জুড়ে গরুর পাল। কিন্তু রাখাল নেই। প্রায়ই অফিস টাইমে রাস্তায় গরু দাঁড়িয়ে পড়ছে। ফলে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। রাজস্থানেও গরু নিয়ে সমস্যা ভয়াবহ। 

২০১২ সালের হিসেব, উত্তরপ্রদেশে ১০ লাখেরও বেশি গরু আছে। গত ৭ বছরে সেই সংখ্যা অনেক বেড়েছে। এ দিকে ঠাঁই নাই ঠাঁই নাই রব। অনেক জায়গায় কৃষকরা রাতে বেওয়ারিশ গরু ধরে সরকারি স্কুল বা কোনো জায়গায় রেখে দিচ্ছেন, যাতে তাদের ফসল ঠিক থাকে। সকাল হলে সেগুলোকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। 

গোবলয়ের গরু এখন শুধুই ড্যাবড্যাব করে তাকিয়ে নেই। ভোটের বাক্স যদি কয়েক জায়গায় শিংয়ের গুঁতোয় উল্টে যায়, অবাক হওয়ার কিছু নেই। 

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য