৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১৬:৩২

অতিডান অতিবাম মিলেমিশে একাকার: কাদের

ফেনী প্রতিনিধি

অতিডান অতিবাম মিলেমিশে একাকার: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অতিডান অতিবাম মিলেমিশে একাকার। তাদের লক্ষ শেখ হাসিনা হটানো, সরকার হটানো। তারা গণমিছিল করেছে ৩৩ দল মিলে। এর মধ্যে বেশিরভাগেরই ঢাল নাই তলোয়ার নাই, নিধিরাম সরদার। 

শনিবার ওবায়দুল কাদের ঢাকা থেকে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে নিজ পৈতৃক বাড়িতে হেলিকপ্টারযোগে যাওয়ার পথে ফেনীর গার্লস ক্যাডেটর কলেজে অবতরণ করেন। এসময় মন্ত্রী সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। 

তিনি আরও বলেন, গতকাল মৌচাকে মালিবাগে জামায়াত বিএনপি সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। তাদের মোকাবেলায় আমরা মাঠে ছিলাম। রাজপথে ছিলাম সারাদেশে। আমরা আক্রমন করবো না। আক্রান্ত হলে পরিস্থিতি বলে দিবে আমরা কিভাবে জবাব দেব। আমরা সতর্ক অবস্থায় আছি।

মেট্রোরেলের ভাড়া নিয়ে কেউ কেউ কথা বলেছেন। ঢাকা শহরে কেউ রিক্সায় উঠলেই ২০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। সে হিসেবে মেট্রোরেলের ভাড়া বেশি নয়। কিভাবে বেশি?

তিনি বলেন, বিএনপি কেন সংসদ থেকে পদত্যাগ করেছে তারা নিজেরাও জানে না। আমার বিশ্বাস বিএনপি নির্বাচনে আসবে। বিশ্বের কোথায়ও বর্তমানে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নেই। বাংলাদেশেও তাই কোন সুযোগ নেই। বিশ্ব অর্থনৈতিক অবস্থা কিছুটা খারাপ ছিল, এখন মোটামুটি ভালোর দিকে। আমরা বিশ্বের উন্নত অনেক দেশ থেকে অনেক ভালো আছি। পুরো বিশ্বকাপ চলাকালে আমাদের বিদ্যুৎ যায়নি। বিদ্যুতের অবস্থা এখন অনেক ভালো।

রংপুরের নির্বাচনের ব্যাপারে তিনি বলেন, এটা একটা আঞ্চলিক নির্বাচন এটা নিয়ে তেমন কিছু যায়-আসে না। তাছাড়া রংপুরে এরশাদের একটা বড় অবস্থান আছে। আমাদের মধ্যেও কিছুটা অনৈক্য ছিল। আমরা তদন্ত কমিটি করেছি। আমাদের দলের কারও মধ্যে যদি কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, জেনেভা কনভেনশনের নীতিমালা অনুযায়ী ভিনদেশিরা অন্যদেশকে নিয়ে কথা বলতো বা মন্তব্য করতে পারে না। এটি কূটনৈতিক নীতিমালার পরিপন্থী। আমরা ভিনদেশকে নিয়ে কখনও কথা বলি না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ফেনী ২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ উল হাসান, পুলিশ সুপার জাকির হাসান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট হাফেজ আহমামদ, ফেনী পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান শুসেন চন্দ্র শীলসহ ফেনী জেলার প্রতিটি জনপ্রতিনিধি। এসময় ফেনী গালর্স কলেজ এলাকা থেকে ফেনী শহর পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে প্রায় বিশ হাজার নেতা-কর্মী মন্ত্রীকে ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে বরণ করেন।  

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর