শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১১:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

নেত্রকোনার পৌর নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনার পৌর নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ পৌরসভায় আজ শনিবার চলছে ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হলেও সকাল সাড়ে নয়টা পর্যন্ত আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ঘুরে দেখা যায় ভোটারের কোন লাইন নেই। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে তৎপর। এদিকে কেন্দ্রের বাইরে রয়েছে নির্বাচনী আমেজ। এই ভোট টানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে। নির্বাচনের দ্বায়িত্বরত কর্মকর্তারা বলছেন বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি বাড়ছে।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ শেখ জানান, দু'টো পৌরসভাতেই স্ট্রাইকিং ফোর্স প্রতি তিনটি কেন্দ্রে একটি করে রয়েছে। মোবাইল টিম প্রতি কেন্দ্র একটি করে, আনসার রয়েছে প্রতিকেন্দ্র নয়জন করে। সব মিলিয়ে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে নিয়োজিত রয়েছেন। 

পৌরসভার মোট ৯টি ভোট কেন্দ্রের ৬৭টি ভোট কক্ষে ভোটার সংখ্যা ২১ হাজার ৪ শত ৪ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ৪ শত ১৪, নারী ১০ হাজার ৯শত ৯১।

মোহনগঞ্জ পৌরসভায় এবার মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৪ জন। তারা হলেন- বর্তমান মেয়র আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট লতিফুর রহমান রতন, (নৌকা), বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মাহবুবুন্নবী শেখ (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র প্রার্থী তাহমিনা পারভীন বিথী (নারিকেল গাছ) ও অপর স্বতন্ত্র চৌধুরী আবু হেনা মোস্তফা কামাল সেতু (মোবাইল ফোন)। মেয়র প্রার্থীদের স্বতন্ত্র দুজনের আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। 

এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মোহনগঞ্জে ৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও সহাকারি প্রিজাইডিং ৬৭ জন। ১৩৪ জন পেলিং অফিসার নিয়োজিত রয়েছেন।

এদিকে, জেলার কেন্দুয়া উপজেলাতেও কেন্দুয়া পৌরসভায় চলছে ভোট গ্রহণ। তবে কেন্দুয়া চলছে ইভিএম পদ্ধতিতে। মেয়র পদে নৌকা নিয়ে বর্তমান মেয়র আসাদুল হক ভূইয়া ও ধানের শীষ মার্কায় শফিকুল ইসলাম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভায় ১৬ হাজার ২৫৬ জন ভোটার ভোট প্রদান করবেন। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৩ জন লড়ছেন।

ইভিএম পদ্ধতিতে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণের জন্য ৯টি কেন্দ্রে ৯ জন নির্বাহী হাকিম, ১ জন বিচারিক হাকিমসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ, আনসার, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরা মাঠে রয়েছেন। এছাড়াও ৯ জন প্রিজাইডিং, ৪২ জন সহকারি প্রিজাইডিং ও ৮৪ জন পোলিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করছেন।


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর