শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০১:২৬

বিজয় দিবসে উচ্ছল সাংস্কৃতিক অঙ্গন

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক

বিজয় দিবসে উচ্ছল সাংস্কৃতিক অঙ্গন

নাচ-গান ও আবৃত্তিসহ নানা আয়োজনে বিজয়ের ৪৯তম বার্ষিকী উদযাপন করেছে শিল্পকলা একাডেমি। গতকাল সকাল ৯টা থেকে দুপুর পর্যন্ত জাতীয় স্মৃতিসৌধে কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি আসাদ মান্নান, নূরুল হুদা, আসলাম সানি, রহিমা আক্তার কল্পনা। আবৃত্তি করেন মজুমদার বিপ্লব, তামান্না তিথি, আবদুল রাকিবিল বারী, মাসকুর-এ-সাত্তার কল্লোল, আবু নাসের মানিক। সংগীত পরিবেশন করেন রুকসানা আক্তার রূপসা, সুচিত্রা রানী সূত্রধর, সোহানুর রহমান সোহান, আবিদা রহমান সেতু, রাফি তালুকদার, মোহনা দাস, কোহিনুর আক্তার গোলাপী, স্মরণ, সাব্বির জামান ও রাজীব। লিয়াকত আলী লাকীর রচনা ও নির্দেশনায় বাঙলা কলেজ যুব থিয়েটার মঞ্চায়ন করে নাটক ‘মুজিব মানে মুক্তি’। ‘সাহসী তারুণ্যে আগামীর বাংলাদেশ’ শিরোনামে চারুশিল্পীদের অংশগ্রহণে আর্টক্যাম্পে অংশ নেয় জাহিদ মুস্তাফা, সনজীব দাস অপু, সৈয়দা মাহবুবা করিম (মিনি করিম), শামসুল আলম আজাদ, আলপ্তগীন তুষার, রিফাত জাহান কান্তা, মুক্তি ভৌমিক, মনি দীপা দাস গুপ্ত, জাকির হোসেন পুলক, রতেœস্বর সূত্রধর ও তৈমুর হান্নান। দ্বিতীয় পর্বে সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এ পর্বের শুরুতেই জাতীয় নাট্যশালার লবিতে নৃত্যের মাধ্যমে অতিথিদের স্বাগত জানায় নৃত্য সংগঠন স্পন্দন এবং জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তন মঞ্চে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির কণ্ঠশিল্পীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় সংগীত। আলোচনা পর্বে অনলাইনে মুখ্য আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীকে এম খালিদ। অনলাইনে যুক্ত ছিলেন একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। স্বাগত বক্তৃতা করেন একাডেমির সচিব মো. নওসাদ হোসেন। বিজয় দিবস উদযাপন করেছে জাতীয় জাদুঘর। জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনের এই আয়োজনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর