রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

সুরের মূর্ছনায় কবিগুরুকে স্মরণ

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক

সুরের মূর্ছনায় কবিগুরুকে স্মরণ

বাংলা সাহিত্যের মহিরুহ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। নিজের সৃজন ও মননে বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতিকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরেছেন কবিগুরু। ২২ শ্রাবণ শুক্রবার ছিল কবির ৮০তম প্রয়াণবার্ষিকী। এ উপক্ষে গতকাল ভার্চুয়াল আয়োজনে কবিকে স্মরণ করেছে বাংলাদেশ সংগীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদ। সংগঠনটির ফেসবুক পেজে রাত ৮টায় সরাসরি সম্প্রচারিত হয় রবীন্দ্র প্রয়াণবার্ষিকীর ডিজিটাল এই আয়োজন। কবিগুরুর বিভিন্ন পর্বের গান দিয়ে সাজানো ছিল রবীন্দ্রনাথ স্মরণের এই সংগীতাসর। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন তপন মাহমুদ, রোকাইয়া হাসিনা, পীযুষ বড়ুয়া, খন্দকার খায়রুজ্জামান কাইয়ূম, সুমা রায় ও শিমু দে। অনুষ্ঠানের শুরুতেই রোকাইয়া হাসিনা পরিবেশন করেন-জীবন মরণের সীমা ছাড়ায়ে, পথে চলে যেতে যেতে ও মরণেও তুহু। পীযুষ বড়ুয়া গেয়ে শোনান- তুমি কী কেবলই ছবি, চরণ ধরিতে, ও এই করেছ ভালো। খায়রুজ্জামান কাইয়ূমের কণ্ঠে গীত হয়-জড়ায়ে আছে বাধা, চিত্ত আমার হারালো আজ ও অরূপ তোমার বাণী। সুমা রায় পরিবেশন করেন- চোখের আলোয় দেখেছিলেম ও কোন আলোতে প্রাণের প্রদীপ। শিমু দে গেয়ে শোনান- গহন কুসুমকুঞ্জ মাঝে, বধু মিছে রাগ করো না ও তাই তোমার আনন্দ আমার। কবিগুরুর অমর সৃষ্টির সুরে সুরে ভার্চুয়াল এই আয়োজনকে রাবীন্দ্রিক করে তোলে শিল্পীরা। কথা ও সুরে সমগ্র আয়োজনে মূর্ত হয়ে ওঠে বিশ্বকবি।

শোকাবহ আগস্টে শিল্পকলা একাডেমির মাসব্যাপী আয়োজন : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মাসব্যাপী অনলাইন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে শিল্পকলা একাডেমি। আলোচনা, সংগীত, নৃত্য, আবৃত্তি, নাটক ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের নিয়ে অনন্য আয়োজনসহ নানা অনুষ্ঠান দিয়ে সাজানো হয়েছে মাসব্যাপী অনুষ্ঠানমালা। প্রতিদিনের অনুষ্ঠানেই থাকবে অতিথিদের বিষয়ভিত্তিক আলোচনা এবং দেশের বরেণ্য ও বিশিষ্ট শিল্পীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। এ ছাড়াও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমি নির্মিত নাটক পরিবেশিত হবে।

গতকাল সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী আসরে অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবুল মনসুর, কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, একাডেমির সচিব মো. আছাদুজ্জামান ও একাডেমির প্রযোজনা বিভাগের পরিচালক সোহাইলা আফসানা ইকো।

উদ্বোধনী আসর সাজানো ছিল ‘সোনার মানুষ চাই’-শিরোনামে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দিয়ে। দেশবরেণ্য কণ্ঠশিল্পীদের গান, যন্ত্রশিল্পীদের যন্ত্রবাদন ও আবৃত্তিশিল্পীদের কবিতার দীপ্ত উচ্চারণের মধ্য দিয়েই আয়োজিত হয় এদিনের অনুষ্ঠানমালা। ৩১ আগস্ট শেষ হবে শোকাবহ আগস্টের মাসব্যাপী এই অনলাইন আয়োজন।

এই বিভাগের আরও খবর