Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০৯:৪০
আপডেট : ৩ অক্টোবর, ২০১৯ ২১:৩৮

বঙ্গবন্ধুর খুনির আপন ভগ্নিপতিকেও সে বিসিবির পরিচালক বানিয়েছে!

পীর হাবিবুর রহমান

বঙ্গবন্ধুর খুনির আপন ভগ্নিপতিকেও সে বিসিবির পরিচালক বানিয়েছে!
পীর হাবিবুর রহমান

বঙ্গবন্ধুর আস্থা ও বিশ্বাসের সাথে বেইমানি করেছিল খন্দকার মোশতাক, তাহের ঠাকুররা। জাতির পিতার আপনজনেরাই তাজউদ্দিনকে সরিয়ে মোশতাকদের তার পাশে ভিড়িয়েছিলেন। ৭৫ সালের কালোরাতে বঙ্গবন্ধু পরিবার-পরিজনসহ যখন বর্বর হত্যকাণ্ডের শিকার হন তখন সেই আপনজনরাও রেহাই পাননি। যেমন আদর্শের বন্ধু তাজউদ্দিনরাও ক্ষমতা থেকে দূরে থেকেও কারাগারে পরে নিহত হন।

ভাবতেই অবাক লাগে কট্টর বিএনপি, বেগম খালেদা জিয়ার দেহরক্ষী, বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরকারী লোকমানকে আওয়ামী লীগের ১০ বছরে ক্ষমতাধরই করা হয়নি, অবৈধ ক্যাসিনো বাণিজ্যের কালোটাকার মালিক বানিয়ে বিপুল অর্থ-সম্পদ ও বিদেশে অর্থ পাচার করতে দেয়া হয়েছে। বিসিবির দাপুটে পরিচালক করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর খুনির আপন ভগ্নিপতিকেও সে হাত ধরে বিসিবির পরিচালক বানিয়েছে! ক্রিকেট মাঠে প্রধানমন্ত্রীর বক্সে তারাও পিছনে বসে খেলা দেখেছে।

জি কে শামীমকে যুবদল থেকে যুবলীগে এনে সরকারি সব ভবন নির্মাণের একচ্ছত্র ঠিকাদারি দেয়া হয়েছে। তাই প্রধানমন্ত্রী যেখানেই উদ্বোধনে গেছেন সেখানেই মাফিয়া ডন শামীম ছবি তুলতে পেরেছে প্রধানমন্ত্রীসহ উপর মহলের সাথে। বিপুল অর্থ ও সম্পদ আর ভোগের সাম্রাজ্য পায় জি কে শামীম।

মুজিব কন্যা দুর্নীতি অপরাধের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু না করলে সমাজ ও রাষ্ট্রে চলমান বেআইনি কাজের বীভৎস চিত্র ও কুৎসিত মুখ যেমন বের হয়ে আসতো না, তেমনি শেখ হাসিনার বিশ্বাসের সাথে তার দলের আপনজনরা কিভাবে বেইমানি করেছেন তা অজানাই থাকতো।

কেবল কি অনুপ্রবেশকারিরাই অপরাধী? দলের তথাকথিত খাঁটি নামধারী একদল বেইমান লোভীদের হাত ধরে যেমন এরা এসেছে, লুটেছে দম্ভের পথে হেঁটেছে, তেমনি বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আস্থা ও বিশ্বাসের সাথে বেইমানি করে আদর্শহীন লোভ লালসায় একদল মন্ত্রী, এমপি, দলের কেন্দ্রীয় ও তৃণমূল নেতা অবৈধভাবে ১০ বছরে দুর্নীতি করে অঢেল অর্থ-বিত্ত-সম্পদ বানায়নি?

এরা মুজিব কন্যা ও দলের ইমেজ হানি নিজেদের স্বার্থে করেনি? শূন্য থেকে অসৎ অর্থ, সম্পদ ও ক্ষমতার দম্ভে পথ হাঁটছে না? আজ দুর্নীতির বিরুদ্ধে হাত দিতেই শেখ হাসিনা জনপ্রিয়ই হননি জনগণের সমর্থনও পাচ্ছেন, আশা জাগিয়েছেন দেশবাসীর মনে। শেখ হাসিনা এইসব দলের আস্থায় রাখা ও অনুপ্রবেশকারি বিশ্বাসঘাতক দুর্নীতিবাজদের মোটা ঘাড় ভেঙে দিলেই দল আদর্শিক নেতা কর্মীতে শক্তিশালী ও জনপ্রিয় হবে। এ কালো শক্তির বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হয়ে দেশপ্রেমিক রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে বাংলাদেশের সুশাসন নিশ্চিত করবেন। অপরাধ নির্মূল করে অর্থনেতিক উন্নয়নে দেশকে এগিয়ে নিন শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের চেয়েও বড় জায়গায়।

লেখক: নির্বাহী সম্পাদক, বাংলাদেশ প্রতিদিন

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব


আপনার মন্তব্য