Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯ ১১:৩৬

মামুন-তারেকের মর্যাদার লড়াই ১৩ জানুয়ারি

দবির তালুকদার,স্পেন থেকে

মামুন-তারেকের মর্যাদার লড়াই ১৩ জানুয়ারি

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের বহুল কাঙ্খিত এবং আলোচিত আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে স্পেনের বাংলাদেশি কমিউনিটিতে চলছে ব্যাপক আলোচনা। সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন পদে কারা আসছেন নেতৃত্বে- এ নিয়ে জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। প্রার্থীদের ঘুম হারাম বিরামহীন প্রচারণায়। এ লড়াই অস্তিত্বের, এ লড়াই মর্যাদার। 

'টক অব দ্যা টাউন' এখন মাদ্রিদ বাংলাদেশি পাড়া লাভাপিয়েছ। গত এক মাস ছিল নির্বাচনি মিছিল, মিটিংয়ে মুখরিত। যেন ঈদ উৎসবের মতোই। 

বাংলাদেশিরা ভোট উৎসব প্রিয় জাতি। সেটা হউক জাতীয়, স্থানীয় উপজেলা কিংবা ইউপিসহ যেকোনো সংগঠন, সমিতির নির্বাচন। শুরু হয়ে যায় উৎসব, আনন্দ-উচ্ছ্বাসের বন্যা। প্রবাসেও ভোটের আনন্দ উৎসব কদাচিৎ মিললেও তা হয়ে উঠে নাড়ির টানে উৎসব মুখর। 

আগামী ১৩ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রবাসীরা এমনিতেই দেশে ভোট দিতে পারেন না, তাই ভোট উৎসবের সুযোগ প্রবাসে পেলে তার বাড়তি একটা আনন্দ বয়ে যায়। 

গত একমাস ছিল- টানা সভা, সমাবেশ, গণসংযোগ। এছাড়াও ছিল- ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাওয়া, যেন বাংলাদেশের ভোটের উৎসব প্রবাসেও। 

মাদ্রিদের বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচনকে ঘিরে সর্বত্র মাতামাতি, চায়ের টেবিল, কফির বার, রেস্টুরেন্ট এবং বাঙালি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চলছে গল্প, আড্ডা ও এক মুখরোচক বিনোদন, যা প্রবাসী সবাইকে বেশ আনন্দ দিচ্ছে। 

খুবই শান্তিপূর্ণভাবে উৎসবমুখর আমেজ বিরাজ করছে বাঙালি অধ্যুষিত লাভাপিয়েছে। তবে, প্রার্থী-সমর্থকরা এখন ব্যস্ত শেষ হিসেব-নিকেশ   নিয়ে। 

মাদ্রিদ কমিউনিটির বাংলাদেশিদের একক প্রতিনিধিত্ব শীল সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের জন্ম ১৯৯৮ সালে। পার্কে ছোট পরিসরে শতাধিক বাংলাদেশি উদ্যাগে শুরু হলেও এক সময় তা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করে। পরবর্তীতে সকল আঞ্চলিক সংগঠনের সমন্বয়ে একটি অভিভাবক সংগঠন হিসেবে অ্যাসোসিয়েশন এক ও অভিন্ন ঠিকানায় পরিণত হয়। যা এখন অর্ধলক্ষাধিক বাংলাদেশির মুখপাত্র। 

নির্বাচন কমিশনের তফসিল ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১৩ জানুয়ারি বহু কাঙ্খিত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। প্রতিবারের মতো এবারও নির্বাচনে দুটি প্যানেলে ২১পদে লড়ছেন ৪২ জন প্রার্থী। তাই প্রতিদ্বন্দ্বিতাও হবে দুমুখী। 

প্রায় দুইযুগ পেরিয়েও এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়শনের স্থায়ী কার্যালয়, বাংলা স্কুল এবং প্রবাসীদের লাশ পাঠানোর জন্য ফান্ড। এই তিনটির কোনটি ই সুরাহা হয়নি। 

এ পর্যন্ত ৬টি পরিষদ দায়িত্ব পালন করলেও আহামরি কিছুই হয়নি। শুধুমাত্র পদ ও পদবি অলংকৃত ছাড়া কেউ সফলভাবে বিদায় নিতে পারেনি 
অনেকেই দেউলিয়া এমনকি নিশ্চিন্ন হয়ে যাওয়ার উপক্রম করেছিল। 

তারপর স্ব-মহিমায় স্ব-গৌরবে টিকে গেছে বাংলাদেশের প্রাণের সংগঠন হিসেবে মাদ্রিদ প্রবাসীরাই তাদের প্রয়োজনে ভালোবাসায় মুমূর্ষু অবস্থা থেকে বাঁচিয়ে রেখেছে বারবার। 

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন এখন পর্যন্ত প্রার্থী হিসেবে সভাপতি পদে আল মামুন-মাসুদ-ফখরুল পরিষদ এবং তারেক-আল আমিন-সুন্দর পরিষদ  নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক প্রচারণা এবং লবিং চালিয়ে যাচ্ছে। 

সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রার্থীরা তাদের সমর্থকদের আলোচনা এবং প্যানেল নিয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনা করছেন। ব্যস্ত সময় পার করছেন নির্বাচন কমিশন। 

এবারের নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ৩৫৭৮ জন। 
 
বেশির ভাগ প্রবাসী এবং আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ইলেকশন চাননি, সিলেকশনের মাধ্যমেই হবে এটাই ছিল কাম্য। কিন্তু সমঝোতা না হওয়ায় এই ইলেকশন। এতে কমিউনিটি বিভাজন, আঞ্চলিক দ্বন্দ্ব আরও প্রকট হতে পারে। 

এবারের ভোটার সংখ্যা প্রায় ৩৫৭৮। সবারই একান্ত কামনা যাতে কোনোরকম অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, প্রবাসে ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন না হয়। নির্বাচনকে ঘিরে ইতিহাস বেশ সুখকর নয়। কিন্তু আসার কথা শেষ নির্বাচন শান্তিপূর্ণ এবং উৎসবমুখর হয়েছিল। 

তবে নির্বাচন শান্তিপূর্ণ এবং উৎসবমুখর পরিবেশে এ দিনটি উৎযাপন করতে বাংলাদেশিরা বদ্ধপরিকর বলে জানিয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য