শিরোনাম
প্রকাশ : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:০৯
আপডেট : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:৩৩
প্রিন্ট করুন printer

ম্যাসেডোনিয়া ও গ্রিসে মহামারী রূপ নিতে পারে করোনা

তাইজুল ফয়েজ, গ্রিস

ম্যাসেডোনিয়া ও গ্রিসে মহামারী রূপ নিতে পারে করোনা

ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসের নতুন রূপটি যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, সুইডেন, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, জার্মানি, বেলজিয়াম, স্পেন, ডেনমার্ক এবং পর্তুগালে শনাক্ত করা হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে করোনার নতুন রূপটি ছড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন দেশে।

এদিকে গ্রিসের সাবেক রাজধানী ওজ্যি দ্বিতীয় বৃহত্তর বাণিক শহর থেসালোনিকি এবং পার্শ্ববর্তী দেশ ম্যাসেডোনিয়া অঞ্চলের রাজধানী প্রায় দশ মিলিয়ন মানুষের বসতি রয়েছে। 

রবিবার হার্ডলিয়াস গ্রিসের উপ-নাগরিক সুরক্ষা মন্ত্রী আরকৌম্যানিস গ্রিসের জাতীয় জনস্বাস্থ্য সংস্থার সভাপতি হিসেবে থেসালোনিকি-তে নেপোলিসের মেট্রোপলিটন চার্চ পরিদর্শন করেছেন। জনসাধারণকে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন এবং এ ব্যাপারে সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

মেসোডোনিয়া ও গ্রিসের জনগণ এই মুহূর্তে সচেতন না হলে ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনার চেয়ে বেশি ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করবে বলে আশঙ্কা।

ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাব গ্রিস এর সাংগঠনিক সম্পাদক জাবেদ মাহমুদ বলেন, নতুন ভাইরাস সম্পর্কে গ্রিসে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের কোন ধারণা না থাকার কারণে গ্রিস সরকারের বিধি-বিধান মেনে চলতে দেখা যাচ্ছে না। রীতিমতো সামাজিক অনুষ্ঠানসহ সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড একত্রিত হয়ে পরিচালিত করছেন। এই নতুন ভাইরাসটির বিস্তার লাভ করলে গ্রিসে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন বলে আশঙ্কা রয়েছে। 

নতুন ভাইরাসের পরিচিতি নিম্নরূপ 

দক্ষিণ আফ্রিকার কোভিড-১৯ ভেরিয়েন্টটি। আনুষ্ঠানিকভাবে ৫০১Y.V২ ভেরিয়েন্ট হিসেবে পরিচিত। এটি SARS-CoV-২ এর একটি বৈকল্পিক, ভাইরাস যা COVID-১৯ বা করোনাভাইরাস এর নতুন রূপ। 

দক্ষিণ আফ্রিকার নেলসন ম্যান্ডেলা লেভ এ প্রথম শনাক্ত করা হয়েছিল করোনার নতুন রূপটি। ২০২০ সালের ১৮ ডিসেম্বর দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে অবহিত করেন।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর