শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০১৭ ২৩:০৭

এবার পাঁচ ফুটবলার নিয়ে জটিলতা

আগাম দলবদল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

দলবদল এলেই ফুটবলারদের নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়। এমন কোনো মৌসুম নেই যে ঝামেলামুক্ত থাকে। গত বছর সাত ফুটবলারকে ঘিরে যে অবস্থা তৈরি হয় তাতে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব মামলার আশ্রয় নিয়েছিল। কারণ শেখ জামালের দাবি ছিল চুক্তি শেষ হওয়ার আগেই ৭ ফুটবলার নতুন দলে যোগ দিয়েছে। আইনি জটিলতার কারণে এই সাত ফুটবলার মৌসুমে প্রথম ট্রফি খেলতে পারেননি। কোর্ট তাদের পক্ষে রায় দেওয়ায় পেশাদার লিগে সাত ফুটবলার নতুন দলে অংশগ্রহণ করেন।

লিগ কমিটি সতর্ক করে দিয়েছিল সামনে যেন এই ধরনের ঘটনা না ঘটে। কিন্তু পুরনো অভ্যাস কি বদলানো যায়। দলবদল নিয়ে বিদেশে কড়া নিয়ম রয়েছে। বাংলাদেশের চেহারা পুরোপুরি ভিন্ন। মৌসুম চলাকালে গোপনীয়ভাবে কোনো কোনো খেলোয়াড় নতুন দলের সঙ্গে চুক্তি করে ফেলেন। এ জন্য তারা মাঠে মনোযোগী থাকে না। লাখ লাখ টাকা পারিশ্রমিক দেওয়ার পরও দলগুলোকে বিপদের মধ্যে থাকতে হয়।

এবার দলবদল শুরু হয়নি। এখনি ফুটবলারদের নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে। গতবার পেশাদার লিগ চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনীতে খেলেছিলেন আরিফুল, তপু বর্মন, হেমন্ত বিশ্বাস, শাকিল ও জুয়েল রানা। এবার এই পাঁচজনই ঢাকা আবাহনী ছেড়ে চলে গেছেন। যদিও রেজিস্ট্রেশন ছাড়া কেউ দল ছেড়েছেন বলা যাবে না। কিন্তু পাঁচজনই নতুন মৌসুমে অন্য দলে খেলবেন বলে আগাম অর্থ নিয়েছেন। এএফসি কাপে খেলার জন্য এই পাঁচজনের নাম আবাহনী রেজিস্ট্রেশনও করে। কিন্তু তারা অনুশীলনে যোগ দেননি। পরে অবশ্য তারা এএফসি কাপ খেলতেও আসেন। আবাহনী তাদের আর মাঠে নামায়নি। উল্টো পাঁচজনকে শোকজ ধরিয়ে দিয়েছে। শোকজে তারা যুক্তি দেখিয়েছে ৩১ ডিসেম্বর তাদের ঢাকা আবাহনীর সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে গেছে। সুতরাং নতুন কোনো দলে যাওয়া বাধা নেই।

অন্যদিকে আবাহনী বলছে জানুয়ারি মাসে লিগ শেষ হয়েছে। শেখ কামাল টুর্নামেন্টেও খেলেছে তারা। সুতরাং ৩১ ডিসেম্বর চুক্তি শেষ হয় কীভাবে? আবাহনীর যুক্তি হয়তোবা ঠিক। কিন্তু এটাও দেখতে হবে নানা সমস্যায় লিগ শেষ হতে বিলম্বিত হয়। সে কারণে চুক্তির মেয়াদের পরও ফুটবলাররা খেলে থাকেন। ঢাকা আবাহনী চুক্তি ভঙ্গের কারণে এই পাঁচ ফুটবলারকে নিষিদ্ধ করেছে। কিন্তু পাঁচ ফুটবলার যেসব দলে যোগ দিয়েছেন তারা কি ছেড়ে কথা বলবেন? আসলে ফুটবলারদের চুক্তি নিয়ে বাফুফের কোন নিয়ম নেই। তাই খেলোয়াড় বা ক্লাবগুলো বার বার এ প্রহসনের আশ্রয় নিচ্ছে।


আপনার মন্তব্য