শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪৮

রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট

২৩৩ রানে অলআউট টাইগাররা

মিথুনের হাফ সেঞ্চুরি

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২৩৩ রানে অলআউট টাইগাররা

দীর্ঘ ১৬ বছর পর পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে নেমে প্রথম ইনিংসে ২৩৩ রানেই অলআউট টাইগাররা। সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেছেন মোহাম্মদ মিথুন। এ ছাড়া ৪৪ রানের ইনিংস খেলেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ৫৩ রানে ৪ উইকেট নিয়েছেন পাকিস্তানের বোলার শাহিন শাহ্ আফ্রিদি।

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে বাংলাদেশের শুরুটা ছিল বিভীষিকাময়। সকালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩ রানেই দুই উইকেট হারায় সফরকারীরা। ইনিংসের প্রথম ২ ওভারে দুই ওপেনারকে হারিয়ে বিপাকে পড়ে যায় বাংলাদেশ। শাহিনের বলে প্রথম ওভারেই ক্যাচ তুলে দেন সাইফ হাসান। অভিষেক ম্যাচের প্রথম ইনিংসে বাইশগজে তার স্থায়িত্ব হলো মাত্র ২ বল। পরের ওভারে নির্ভরতার প্রতীক তামিম ইকবালকেও লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন মোহাম্মদ আব্বাস।

এরপর শান্তকে নিয়ে তৃতীয় উইকেটে ৫৯ রানের জুটি গড়ে অধিনায়ক মুমিনুল হক বেশ ভালোভাইে ধাক্কাটা সামাল দিয়েছিলেন। কিন্তু যখনই বাংলাদেশ প্রভাব বিস্তার করতে যাচ্ছিল পাকিস্তানি বোলারদের ওপর, তখনই আউট মুমিনুল। দারুণ ব্যাটিং করতে থাকা শান্তও আউট হয়ে যান দ্রুতই। উইকেটে থিতু হতে পারেননি অভিজ্ঞ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও। তবে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে লিটন দাসের সঙ্গে মোহাম্মদ মিথুনের জুটিটা বেশ জমে উঠেছিল। পার্টনারশিপে হাফসেঞ্চুরিও হয়ে যায়। কিন্তু অসতর্কতার কারণে হারিস সোহেলের বলে লেগ বিফোর হয়ে যান লিটন। ১৬১ রানেই ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। লিটন-মিথুন জুটিই ছিল সবচেয়ে স্বীকৃত ব্যাটিং জুটি। তখন দলীয় স্কোর ২০০ হবে কিনা তা নিয়েই ছিল সংশয়। কিন্তু সপ্তম উইকেট জুটিতে মিথুনকে দারুণ সঙ্গ দিয়ে ৫৩ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন তাইজুল। দীর্ঘ সময় বাইশগজে কাটিয়ে দেন তিনি। মোকাবিলা করেন ৭২টি বল। যদিও রান করেছেন মাত্র ২২। তবে তাইজুলের ব্যাটিং দেখে মনে হচ্ছিল রাওয়ালপিন্ডির উইকেটে কোনো জুজু নেই। বেশ কিছু সময় উইকেটে থাকার পর যেন তাইজুল আত্মবিশ্বাসে ভুগতে থাকেন। অযথাই বাউন্ডারির চিন্তা করতে গিয়ে স্টাম্পের অনেক বাইরে বল মেরে ক্যাচ তুলে দেন। এরপর এক প্রান্ত থেকে মারকুটে ব্যাটিং করতে থাকেন মিথুন। ছক্কা-চারও হাঁকান। নাসিমের বলে আউট হওয়ার আগে করেন ৬৩ রান।

উইকেটরক্ষকের তালুবন্দী হয়েছেন তিনি। তবে আউটটি মেনে নিতে পারেননি মিথুন। ড্রেসিংরুমে ফেরার সময় মাথা নাড়িয়ে যেন আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে বিরক্তি প্রকাশ করছিলেন। বল ব্যাটে স্পর্শ না করলেও লেগ আম্পায়ার আউট দেন। রিভিউ নিয়েও নিজেকে রক্ষা করতে পারেননি। যদিও টিভি রিপ্লেতেও পরিষ্কার বোঝা যায়নি, বল মিথুনের ব্যাট স্পর্শ করেছে কিনা!

বাংলাদেশ-পাকিস্তান টেস্ট (১ম দিন)

টস : পাকিস্তান

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস : ২৩৩/১০

(৮২.৫ ওভার) (মিথুন ৬৩, শান্ত ৪৪, মুমিনুল ৩০ (শাহিন ৪/৫৩, হারিস ২/১১, আব্বাস ২/১৯)।

 


আপনার মন্তব্য