শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ মে, ২০২১ ২২:৫০

এএফসির একি কান্ড

জামালরা ঢাকায় ছেত্রীরা কাতারে

ক্রীড়া প্রতিবেদক

জামালরা ঢাকায় ছেত্রীরা কাতারে
Google News

ম্যাচের আগেই যেন বাংলাদেশ হেরে বসে আছে। বাফুফের সাংগঠনিক দুর্বলতায় বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এমনই অবস্থা হয়েছে জামাল ভূঁইয়াদের। আগামী মাসে কাতারের দোহায় বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাইয়ে দ্বিতীয় লেগে বাংলাদেশ তিনটি ম্যাচে লড়বে। ৩ জুন আফগানিস্তান, ৭ জুন ভারত ও ১৫ জুন ওমানের বিপক্ষে খেলা। প্রথম পর্বে তিন দলের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলেছিল। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ের নিয়ম অনুযায়ী দ্বিতীয় লেগের ম্যাচগুলো বাংলাদেশেরই হওয়ার কথা ছিল। বাফুফে ম্যাচ আয়োজনে প্রস্তুত ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের ভয়াবহতার কারণ দেখিয়ে ম্যাচগুলো কাতারে নিয়ে যায়। এএফসির এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা ছিল- আফগানিস্তান ও ওমান করোনার কারণে বাংলাদেশে আসতে চায় না।

বাফুফে করোনাভাইরাসে যা যা করা দরকার তার সব সুযোগ-সুবিধাই দেবে, এ কথা এএফসিকে জানিয়েছিল। প্রয়োজনে ব্যবস্থাপনার কোনো ত্রুটি থাকছে কিনা তা এএফসি ও তিনটি ফেডারেশনের প্রতিনিধিদের দেখে যাওয়ার অনুরোধও করেছিল। তবু এশিয়ান ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা বাফুফেকে গুরুত্ব দেয়নি। নিরপেক্ষ ভেন্যু হিসেবে কাতারকেই বেছে নেয়। এটাও তারা বলেছিল স্বাগতিক হিসেবে বাংলাদেশ যে সুবিধাটুকু পেত তা দেওয়া হবে। হোমের সব ফ্যাসিলিটিজ কাতারেও পাবে।

কথা দিলেও কাতার ফুটবল ফেডারেশন সাফ জানিয়ে দিয়েছে, করোনাকালে আন্তর্জাতিক ফুটবলে যেসব সুযোগ-সুবিধা থাকে তা দেওয়া সম্ভব নয়। ঢাকাতে অনুশীলন করেই ৩০ মে কাতারে যাবে। জামালরা এখনো ঢাকাতেই অনুশীলন করছেন। অথচ ভারতের সুনীল ছেত্রীরা গত বুধবারই কাতারে পৌঁছে গেছেন। অপেক্ষায় আছেন অনুশীলনের জন্য। বাংলাদেশ অনুশীলনে কোনো সুযোগই পাচ্ছে না।