শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:৪১

ঘরের মাঠে জয়ের ধারায় সাইফ স্পোর্টিং

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :

ঘরের মাঠে জয়ের ধারায় সাইফ স্পোর্টিং
সংগৃহীত ছবি

সময়ের আলোচিত ফুটবলার ইয়াছিন আরাফাত। সোমবারও মোহামেডানের সাথে সাইফের জার্সি গায়ে নিজের নামের পাশে গোলের অঙ্ক যোগ করেন। আর একমাত্র গোলেই হোম গ্রাউন্ডে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে গতবারের চতুর্থরা। আর ইনজুরির কারণে খেলতে না পারা জামাল ভূঁইয়ার অভাবটাও বুঝতে দেননি কিরগিজস্তানের মুরলিমজন আকমেদেভ।

গতকাল সোমবার বিকালে ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ফুটবল লিগের সর্বোচ্চ আসরে ঢাকা মোহামেডানকে হারায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। ৯০ মিনিটেই দ্রুত গতির খেলা উপহার দিয়েছে ইউরোপিয়ান ফুটবল মডেল অনুসরণ করা কর্পোরেট ক্লাব সাইফ স্পোর্টিং।

কিন্তু দর্শক খরায় দেখে বোঝার উপায় নেই এই মাঠেই হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় ফুটবল লীগ। যেখানে খেলছে জামাল, আরিফ, রিয়াদ ও রহমতের মত জাতীয় দলের তারকারা। ম্যাচের ৫৬ মিনিটে হেড থেকে ইয়াসিন আরাফাতের করা এই গোলের অন্তরালে কাজ করেছেন কিরগিজস্তান জাতীয় দলের ফুটবলার মুরলিমজন আকমেদেভের ফ্রি-কিক।

আর দুর্দান্ত হেডে নিজেকেও প্রমাণ করেছেন এক কোটি ৬০ লাখ টাকার খেলোয়াড় হিসেবে। গতকাল তরুণ এই ডিফেন্ডার অফুরন্ত দম নিয়ে লেফট ব্যাক ও সেন্টারব্যাকেও খেলেছেন চমৎকার। আর মাঝ মাঠে সাইফের দুই উইং আরিফ আর ফাহিমও উপহার দিয়েছে গতিময় ফুটবল।

অবশ্য ম্যাচের শুরুতেই সাফল্য পেতে পারতো হলুদরা। প্রতিপক্ষ শিবিরে আতঙ্ক ছড়াতে কোচ দ্রাগো মামিচের মূল অস্ত্র রহমত মিয়া লং থ্রো দলনেতা রিয়াদুল হাসান কাজে লাগালে দুই মিনিটেই সাফল্য আসতো। অপরদিকে ১৪ মিনিটে ওবি মোনেকের বুদ্ধিদীপ্ত সেটপিস সাত ফুটবলার নিয়ে রক্ষণভাগের দুর্গকে ফাঁকি দিলেও বিপদ হতে দেননি স্বাগতিক গোল রক্ষক পাপ্পু হোসেন। আর প্রথমার্ধে মুরলিমজন আকমেদেভ সাদা-কালোদের জন্য অনেকটা আতঙ্কের কারণই ছিল। দুটি ফ্রি-কিকই দলনেতা রিয়াদুল হাসমান রাফির হেড মিস করে।

দ্বিতীয়ার্ধে গোল হজম করার পরপরই শারীরিক শক্তির প্রদর্শনী হয়েছে কয়েকবার। রেফারির সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে লাল কার্ড দেখতে হয় মোহামেডানের সহকারী কোচ জেমস প্যাট্রিককে। এছাড়া আরো দু’জন খেলোয়াড়কে দেখতে হয়েছে হলুদ কার্ড।

এর আগে ৬৭ মিনিটে সোলেমান ডিয়াবাটের আলতো করে মাথার উপর দিয়ে মারা বলটি ব্যর্থ হলে সমতা আনতে পারেনি সাদাকালোরা।

গোটা খেলায় গোলের দেখা পেতে ব্রেন্ডান লানির শিষ্যরা মরিয়া হয়ে উঠলেও সাইফের ন্যাশনাল টিমের দুই ডিফেন্ডার রহমত মিয়া ও রিয়াদুল হাসান রাফি রক্ষণভাগটা ধরে রেখেছিল ঠিকই। তাই সুযোগ পায়নি মোহামেডান। মাত্র তিনটি আক্রমণের সুযোগ পায়। ইয়াসিন-রহমত-রাফির সমন্বয়ে গড়া রক্ষণদুর্গ শেষ পর্যন্ত আর ভাঙতে না পেরেই শূন্য পয়েন্ট নিয়ে ঘরে ফিলে সাদা-কালোরা।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য