Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জুলাই, ২০১৭ ২৩:৩৮

বনশ্রীতে ভোগান্তির শেষ নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক


বনশ্রীতে ভোগান্তির শেষ নেই
সড়কে ছোট-বড় গর্ত আর ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে সড়কটি এখন মরণফাঁদ

রাজধানীর রামপুরা বনশ্রীতে ভারী ট্রাক, লরি চলাচল থামছে না। ফলে সড়কটি মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। খানাখন্দে ভরা সড়কে চলাচলকারীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়কজুড়ে তীব্র জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। যানবাহন উল্টে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে। সড়কে গর্তের কারণে যানবাহন ধীরগতিতে চলে। এতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকেন যাত্রীরা।

সড়কটি দিয়ে ভারী ট্রাক, লরি চলাচল করায় এ দশা হয়েছে। বৃষ্টিতে এসব গর্ত আরও বেশি বিপজ্জনক হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে সড়কের মাঝের বড় গর্তগুলো পথের কাঁটায় পরিণত হয়েছে। সড়ক দিয়ে গুলশান, বনানী, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, চিটাগাং রোড, ডেমরা, নারায়ণগঞ্জ, রামপুরা, মালিবাগ, মৌচাক, কাকরাইল, মগবাজারসহ বিভিন্ন গন্তব্যে যাতায়াতের জন্য প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে। সড়কের পাশে চলা পয়ঃনিষ্কাশন কাজের খোঁড়াখুঁড়ি আর এসব গর্ত বেশ ভোগান্তিতে ফেলেছে বনশ্রীর মানুষকে।

যানবাহন ও পথচারীদের ভোগান্তি বেড়েই চলেছে। রামপুরা ব্রিজ থেকে বনশ্রীতে ঢোকার মুখেই রাস্তাজুড়ে গর্ত। বনশ্রী কেন্দ্রীয় মসজিদ, বি ব্লক, সি ব্লকের ব্র্যাক ব্যাংকের সামনের সড়কের অবস্থা বেশি খারাপ। প্রধান সড়কের সি ব্লকে দেখা যায়, যানবাহনগুলো খুব ধীরগতিতে গর্ত দেখে সতর্ক হয়ে চলছে। সড়কের কোনো পাশেই ফুটপাথ না থাকায় পথচারীদের চলাচলে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। একেকটি গাড়ি চলছে হেলেদুলে, ধীরগতিতে।

বনশ্রী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল হক বলেন, সড়কটির অবস্থা খুবই খারাপ। কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনের সড়ক একদমই চলার অনুপযোগী। মাঝে মধ্যে গর্তগুলোতে ইট, সুরকি ফেলা হয়। বড় ট্রাক, লরি চলাচল করায় সেগুলো খুব একটা টেকে না। এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে সড়কে খোঁড়াখুঁড়ি চলছে। একে তো ভাঙাচোরা সড়ক, এর ওপর যত্রতত্র নির্মাণসামগ্রী ও নানা সরঞ্জাম ফেলে রাখা হয়। এর ফলে সড়ক সংকীর্ণ হয়ে গেছে। এসব সংকীর্ণ সড়কও আবার গর্তে গর্তে ঝুঁকিপূর্ণ। সব মিলিয়ে বনশ্রীতে সড়কের ভোগান্তিতে নাভিশ্বাস উঠেছে মানুষের।

এদিকে সড়কের এমন দুরবস্থায় এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ীদের ভোগান্তি আরও চরমে উঠে গেছে বলে জানা গেছে। শিক্ষার্থীরা জানান, সড়কে কাদাপানি মাড়িয়ে প্রতিদিন পথ চলতে হয় তাদের।

কখনো কখনো গর্তে পড়ে গিয়ে ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে বলেও জানান তারা।

ব্যস্ততম এ সড়ক দিয়ে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অন্তত ২০ হাজার শিক্ষার্থী যাতায়াত করার সময় হরহামেশাই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। এমন পরিস্থিতি দীর্ঘদিন ধরে চললেও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) সমস্যার সমাধানে কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের।


আপনার মন্তব্য