শিরোনাম
প্রকাশ : ১০ জুলাই, ২০১৯ ১৪:৪৫

বড় বোন এসে দেখলেন ছোট ভাইয়ের নিথর দেহ

সিলেট ব্যুরো

বড় বোন এসে দেখলেন ছোট ভাইয়ের নিথর দেহ

বন্ধুদের সাথে বেড়াতে গিয়ে ধলাইর বুকে হারিয়ে গিয়েছিল লিডিং ইউনিভার্সিটির সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র হাসানুর রহমান আবীর। তিন দিন থেকে ডুবুরিরা চেষ্টা চালিয়েও খুঁজে পাচ্ছিলেন না তার মরদেহ। দুঃসংবাদ পেয়ে সুদুর যুক্তরাজ্য থেকে মঙ্গলবার দেশে ছুটে আসেন বড় বোন নীলা। তার আগমনের দিনই ধলাই নদীতে ভেসে ওঠে আবীরের লাশ। প্রাণচাঞ্চল্যে ভরা যে ছোট ভাইকে রেখে যুক্তরাজ্যে গিয়েছিলেন সেই ভাইয়ের নিথর দেহটাই দেশে ফিরে দেখলেন তিনি। 

হাসানুর রহমান আবীর সিলেট নগরীর খাসদবীর সৈয়দ মুগনী এলাকার আবদুল মতিনের ছেলে।

রবিবার বন্ধুদের সাথে ভোলাগঞ্জ সাদাপাথর বেড়াতে গিয়েছিল আবীর। স্রোতের টানে সে হারিয়ে যায় ধলাই নদীতে। এরপর স্থানীয় লোকজন ও ডুবুরিরা অনেক চেষ্টা চালান। কিন্তু খোঁজ মিলেনি আবীরের। 

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্থানীয় এক মাঝি ধলাই নদীর ব্যাংকার এলাকায় একটি লাশ ভাসতে দেখে খবর দেন পুলিশে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে রাত ১০টার দিকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। 

লাশের সন্ধান দেয়া মাঝি কালা মিয়া জানান, সন্ধ্যার সময় তিনি সাদাপাথর থেকে পর্যটক নিয়ে ফেরার সময় ব্যাংকার এলাকার পাশ্বববর্তী কালিডহর এলাকার একটি লাশ ভাসতে দেখে ঘাটে এসে লোকজনকে জানান। পরে স্থানীয় লোকজন ও বিজিবি সদস্যরা লাশটি তীরে নিয়ে আসেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

এদিকে, ছোট ভাইয়ের দুঃসংবাদ পেয়ে বড় বোন নীলা দেশে ছুটে আসতে পারলেও সাতসমুদ্রের ওপারে কাঁদছেন আরেক বোন নিশা। পাসপোর্ট জটিলতায় তিনি ফিরতে পারেননি দেশে। সপ্তাহখানেক পর তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য