শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ অক্টোবর, ২০২০ ২০:০৫

রায়হানের মায়ের অনশন, আরেকজন গ্রেফতার

ফের রিমান্ডে কনস্টেবল টিটু

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

রায়হানের মায়ের অনশন, আরেকজন গ্রেফতার

হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে অনশন করেছেন সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত রায়হান আহমদের মা সালমা বেগম। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দিনভর অনশন করেন তিনি। পরে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী শরবত পান করিয়ে তাকে অনশন প্রত্যাহার করান। 

এদিকে, রায়হান হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সাইদুর রহমান নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই। 

এছাড়া পাঁচদিনের রিমান্ড শেষে আরও তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে বন্দরবাজার ফাঁড়ির সাময়িক বরখাস্ত হওয়া কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে। 

হত্যাকাণ্ডের ১৫ দিনেও বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ জড়িত সকল পুলিশ সদস্য গ্রেফতার না হওয়ায় রবিবার সকাল ১১টায় আমরণ অনশনে বসেন রায়হানের মা সালমা বেগম। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বন্দরবাজার ফাঁড়ির সামনে অনশনে বসার পর তাতে সংহতি প্রকাশ করে অনেকেই কর্মসূচিতে অংশ নেন। অনশনকে কেন্দ্র করে নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় জড়ো হন হাজারো মানুষ। তাই ব্যস্ততম এই এলাকায় রবিবার সারাদিন দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। 
অনশন চলাকালে রায়হানের মা সালমা বেগম জানান, তার ছেলে হত্যার ১৫ দিন অতিবাহিত হলেও এখনো প্রধান অভিযুক্ত বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ ও পিবিআই। আকবর কোথায় আছে তাও বলতে পারছেন না কেউ। এছাড়া সাময়িক বরখাস্ত হওয়া সকল পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়নি। তার ছেলে কবরে পড়ে থাকলেও হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতরা মুক্ত হাওয়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছে, মা হিসেবে এমন দৃশ্য তিনি সহ্য করতে পারছেন না। তাই পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তিনি অনশনে বসেছেন।
এদিকে, রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে অনশনস্থলে যান সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি রায়হানের মাকে শরবত পান করিয়ে অনশন ভাঙ্গান। এসময় তিনি রায়হানের পরিবারকে ন্যায় বিচার পাওয়ার ব্যাপারে তাদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন।

রায়হানের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগ তোলা যুবক আটক

সিলেট বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে মারা যাওয়া রায়হান আহমদের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগকারী সাইদুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। রবিবার সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রায়হান হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই’র ইন্সপেক্টর মাহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, রায়হানের বিরুদ্ধে ছিনতাইর অভিযোগকারী সাইদুর রহমানকে রবিবার সকাল ১১টার দিকে পিবিআই অফিসে আনা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সন্ধিগ্ধ হিসেবে তাকে আটক করা হয়। পরে তাকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়। তিনি বলেন, সাইদুর রহমানের দেয়া খবরের ভিত্তিতেই রায়হানকে পুলিশ ধরে নিয়ে আসে। 

টিটু ফের রিমান্ডে : রায়হান হত্যাকাণ্ডের পর সাময়িক বরখাস্ত হওয়া বন্দরবাজার ফাঁড়ির কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে ফের রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই। পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে রবিবার তাকে অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে আরো তিনদিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। শুনানী শেষে বিচারক জিয়াদুর রহমান তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড মঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই’র পরিদর্শক মাহিদুল ইসলাম। বর্তমানে টিটু ছাড়াও সাময়িক বরখাস্ত হওয়া আরেক কনস্টেবল হারুনুর রশিদ ৫ দিনারে রিমান্ডে রয়েছে।  

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য