শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৪:৩০

বরিশালে কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

বরিশালে যথাযোগ্য মর্যদায় পালিত হচ্ছে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২০। শুক্রবার ভোর থেকে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে প্রভাত ফেরী করে নগরীর সদর রোডের কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে ভিড় করেন সর্বস্তরের মানুষ। শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তারা। 

ভাষা শহীদদের শুভেচ্ছা জানানো ফুলে ফুলে ছেয়ে যায় শহীদ বেদী। একুশের অনুষ্ঠানমালা নির্বিঘ্ন এবং শান্তিপূর্ণ করতে শহীদ মিনার এলাকায় কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। 

এদিকে, দিবসটি পালন উপলক্ষে নগরীর সুবিধাবঞ্চিত রসুলপুর চরে ব্যতিক্রমী শহীদ মিনার নির্মাণ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। 

কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকসহ অন্যরা বলেন, ভাষা আন্দোলনের ৬৮ বছর পরও রয়ে গেছে অনেক অপূর্ণতা। সর্বস্তরে এখনো পুরোপুরি চালু হয়নি মাতৃভাষা। নতুন প্রজন্মের মাঝে মাতৃভাষার চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার তাগিদ দেন তারা। একুশের চেতনা ধারণ করে অন্যায় মেনে না নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তারা। 

এদিকে, একুশের চেতনা বাস্তবায়নে দেশ থেকে বৈষম্য দূরীকরণ এবং গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বিরোধী রাজনীতিক বাসদ বরিশাল জেলার সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তী এবং মহানগর বিএনপি’র সভাপতি সাবেক মেয়র অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার। 

এর আগে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে বরিশাল কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে প্রথমে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক (মন্ত্রী মর্যাদা) আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি। এরপর সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ এবং বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাগণ, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। 

এ সময় ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন শহীদ বেদীতে উঠে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত করেন। 

এদিকে বিগত বছরের মতো এবারও একুশের এই দিনে নগরীর রসুলপুর চরের শিশুদের অংশগ্রহণে শহীদ মিনার নির্মাণ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। সুবিধা বঞ্চিত ওই চরে ১২টি অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে শিশুরা। বিকেলে এ উপলক্ষে পুরস্কার বিতরণীর আয়োজন করেছে ছাত্রফ্রন্ট। 

অপরদিকে, দিবসটি উপলক্ষে সার্কিট হাউজ চত্ত্বরে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়। 

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য