শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ মার্চ, ২০২০ ১৭:০৫

সার্জিক্যাল মাস্ক চেয়ে ফেসবুকে চিকিৎসকের মিনতি ভাইরাল!

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:

সার্জিক্যাল মাস্ক চেয়ে ফেসবুকে চিকিৎসকের মিনতি ভাইরাল!
প্রতীকী ছবি

‘আমি একজন চিকিৎসক। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত আছি। আমার কিছু সার্জিক্যাল মাস্ক দরকার। প্লীজ হেল্প করেন।’

শনিবার দুপুর ২টা ৪৯ মিনিটে 'ময়মনসিংহ হেল্পলাইন' নামের একটি ফেসবুক গ্রুপে নিজের মোবাইল নম্বর দিয়ে এমন পোস্ট দেন বিমল কুমার সাহা নামের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এক চিকিৎসক। তিনি সার্জারি বিভাগের মেডিকেল অফিসার।

চিকিৎসকের দেওয়া এমন পোস্ট মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়। এই সময়ে কমেন্টস পড়ে ৯০টি। আর ইমোজি আসে ৯৮১ টি। অনেকেই এমন স্ট্যাটাসে কমেন্টস বক্সে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ করছেন। আবার অনেকেই সাহায্যের হাত বাড়াচ্ছেন। তবে অনেকেই প্রশ্ন রাখছেন চিকিৎসকদের যদি এই অবস্থা হয় তাহলে সাধারণ মানুষ কোন অবস্থায় আছে?

ডা. বিমল কুমার সাহার এই পোস্টে আব্দুল্লাহ আল-মাসুদ নামের একজন মন্তব্য করেছেন, ‘বাহ, কি সোনার বাংলায় বসবাস করি। ডাক্তাররাও নাকি সার্জক্যাল মাস্ক এর জন্য অনলাইনে হাত পাতে। স্বাস্থ্যখাত এর মন্ত্রীরা কী করে বুঝি না।’

এমন মন্তব্যে আরিফুর রহমান রাহাত নামের আরেক চিকিৎসক রিপ্লাই দিয়েছেন, ‘তাহলেই বোঝেন যারা আমরা চিকিৎসা দেই, আমরাই কতোটা ভুক্তভোগী...!!!’

জুবায়ের আহমেদ নামের আরেকজন মন্তব্য করেছেন ‘ ডাক্তাররা যখন সার্জিক্যাল মাস্ক খুঁজে! দুঃখজনক’!

দেশে কোনো সরকার আছে কী না এমন প্রশ্ন রেখে কমেন্ট করেছেন মোস্তফা কামাল।

সংবাদটি কার কেমন লেগেছে, জানিনা। তবে, বিষয়টি সত্য হলে,সহযোগিতা করা উচিৎ- এমন আহ্বান জানিয়ে মীর মুস্তফা নামের আরেক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘দয়া করে অযথা বাজে মন্তব্য করবেন না। আশাকরি, এই হেল্পলাইন কারোর ক্ষতি করেনি। যদি করেই থাকে, তবে, ব্যাক্তিগতভাবে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। এই মানবতার ফেরিওয়ালাদের উৎসাহিত করি, ভুল হলে সংশোধন করি, কাঁদা ছোড়াছুড়ি না করে। আজ থেকে বলি, সম্ভব হলে সাধ্যের মধ্যে সহযোগিতা করবো, ট্রল নয়।’

ফেসবুক পোস্টে উল্লেখ করা মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে এমন স্ট্যাটাসের কারণ জানতে চাইলে ডা. বিমল কুমার সাহা বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমার মাত্র দুইটা মাস্ক আছে, এ দুইটা মাস্কই ঘুরে ফিরে ব্যবহার করছি। এক লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক দিয়েছে হাসপাতাল থেকে। যেটাতে আসলে প্রটেকশান হয় না। কোথাও মাস্কও পাচ্ছি না।’

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য