Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:০৫

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার কার্যকর বাস্তবায়ন চায় টিআইবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার কার্যকর বাস্তবায়ন চায় টিআইবি

ন্যায়ভিত্তিক ও সুশাসিত দেশ গঠনে চলমান দুর্নীতিবিরোধী ‘শুদ্ধি অভিযানে’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না’- ঘোষণার কার্যকর বাস্তবায়ন চায় ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। গতকাল প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক সভায় (২০১৮-১৯) সমাজের সকল পর্যায়ে দুর্নীতির প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ প্রতিরোধে অনিয়মে জড়িত সবাইকে পরিচয় নির্বিশেষে জবাবদিহিতার আওতায় আনা অপরিহার্য বলে অভিমত প্রকাশ করেন উপস্থিত সদস্যরা।

টিআইবির ধানমন্ডিস্থ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবার ভিত্তিতে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনে সম্পৃক্ত বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ৫১ জন সদস্য অংশগ্রহণ করেন। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামানের সঞ্চালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন টিআইবির সাধারণ পর্ষদ সদস্যদের নির্বাচিত প্রতিনিধি কাজী মো. মোরতুজা আলী। সদস্যরা শিক্ষাঙ্গনে শৃঙ্খলা রক্ষায় সরকারের ব্যর্থতায় ক্ষোভ প্রকাশ করে শিক্ষাঙ্গনের সুস্থ পরিবেশ ফেরাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের পাশাপাশি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপ গ্রহণে বিরত থাকা এবং উত্থাপিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ায় ন্যায়বিচার নিশ্চিতের আহ্বান জানান। সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় ‘সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮’ এর কঠোর বাস্তবায়ন এবং আর্থিক খাতে আস্থা ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে স্বাধীন কমিশন গঠনের মাধ্যমে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের দাবি জানান তারা। ক্রমবর্ধমান খেলাপি ঋণ ও ব্যাপক অনিয়মে জর্জরিত ব্যাংকিং খাতের সংস্কারের লক্ষ্যে ব্যাংকিং কমিশন করার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেও কমিশনটি বাংলাদেশ ব্যাংকের অধীনে গঠন করা হলে তা একটি অর্থহীন ও অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্ত হবে অভিমত প্রকাশ করেন সদস্যরা।

সভার ঘোষণাপত্রে দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধে কার্যকর দুর্নীতি দমন কমিশন, জাতীয় উন্নয়নে স্বচ্ছতা ও সবার অংশগ্রহণ, অবাধ তথ্য প্রবাহ ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিতের তাগিদ দেওয়া হয়। সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্য থেকে ফেরত আসা নির্যাতনের শিকার নারী শ্রমিকদের ব্যাপারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনতিবিলম্বে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়। ন্যায়ভিত্তিক, সুশাসিত ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়তে নিজ নিজ অবস্থান থেকে একক ও সমষ্টিগতভাবে দুর্নীতিকে কার্যকরভাবে প্রতিরোধের সম্মিলিত প্রত্যয় পুনর্ব্যক্ত করার মধ্য দিয়ে শেষ হয় টিআইবির বার্ষিক সভা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর