শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:১৯

হাকিমপুরী জর্দা বাজার থেকে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

হাকিমপুরী জর্দা বাজার থেকে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর সিসা, ক্যাডমিয়াম ও ক্রোমিয়াম পাওয়ায় হাকিমপুরী জর্দা বাজার থেকে সরিয়ে নিতে নির্দেশ দিয়েছে নিরাপদ খাদ্য আদালত। বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গত সোমবার আদালত এ নির্দেশ দেয়।

অন্যদিকে হাকিমপুরী জর্দা বাজারে পাওয়া গেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউট (বিএসটিআই)। প্রতিষ্ঠানটি হাকিমপুরী জর্দার ট্রেডমার্ক ও লোগো ব্যবহার না করারও নির্দেশ দিয়েছে। এই জর্দার মালিক হাজী মো. কাউছ মিয়া দেশের সেরা করদাতা হিসেবে ১৪ বার পুরস্কৃত হয়েছেন।

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, ২২টি জর্দার নমুনা ল্যাবে পরীক্ষা করে প্রতিটিতে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর উপাদানের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। হাকিমপুরী জর্দার প্রতি কিলোগ্রামে দশমিক ২৬ মিলিগ্রাম সিসা, দশমিক ৯৫ মিলিগ্রাম ক্যাডমিয়াম এবং ১ দশমিক ৬৫ মিলিগ্রাম  ক্রোমিয়াম পাওয়া যায়।

এই জর্দা দীর্ঘদিন খাওয়ার কারণে মানুষ কিডনি, ফুসফুস, দাঁতের মাড়ি ও লিভারের দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে। হাকিমপুরী জর্দা বাজারে সবচেয়ে প্রচলিত ব্র্যান্ড ও মাত্রাতিরিক্ত ক্ষতিকর উপাদান পাওয়ায় সবার আগে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ধীরে ধীরে সব ধরনের গুল, জর্দা ও খয়েরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সংস্থাটির পরিদর্শক কামরুল হাসান জানান, দুই ধাপে বাজার থেকে বিভিন্ন রকম জর্দা সংগ্রহ করে ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করে স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান পাওয়া গেছে। এরপর নিরাপদ খাদ্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন নির্ধারণ করেছে। এই সময়ের মধ্যে হাকিমপুরী জর্দার সংশ্লিষ্ট লটের সব মালামাল বাজার থেকে সরাতে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট  কোম্পানিকে নির্দেশ দিয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর