শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ ডিসেম্বর, ২০২০ ২৩:১৭

রংপুরের অপহৃত গাইনি চিকিৎসক ঢাকায় উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রংপুর নগরীর গাইনি চিকিৎসক অপহৃত হওয়ার ২১ মাস পর ঢাকার মোহাম্মদপুর থেকে তাকে উদ্ধার করেছে সিআইডি পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত যুবককে। গতকাল নগরীর কেরানীপাড়া এলাকায় সিআইডি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ খবর জানান রংপুর সিআইডির পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাস। তবে উদ্ধারের পর গাইনি চিকিৎসক পুলিশকে জানিয়েছেন - তিনি স্বেচ্ছায় বিয়ে করে সংসার করছিলেন। তাকে কেউ অপহরণ করেনি। তিনি রংপুর নগরীর একটি বেসরকারি মেডিকেল হাসপাতালে গাইনি বিভাগে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানান, গত বছর মার্চে রংপুরের ব্যবসায়ী আবদুল গফুর তার মেয়ে গাইনি চিকিৎসক ডা. আয়েশা ছিদ্দিকা মিতু (৩৪) অপহৃত হয়েছে উল্লেখ

করে কোতোয়ালি থানায় অপহরণ মামলা করেন।

 মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, নগরীর আলমনগর কলোনির সেলুনের নাপিত রফিকুল ইসলাম ওরফে বাপ্পি (৩৫) তার মেয়েকে অপহরণ করেছে।

দীর্ঘদিন পুলিশ চেষ্টা করেও ডা. মিতুকে উদ্ধার করতে পারেনি। পরে মামলাটি তদন্তের জন্য সিআইডি পুলিশের কাছে দেওয়া হয়। সিআইডির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ইউনুছ অনুসন্ধান চালিয়ে সোমবার রাতে ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার চানমিয়া হাউজিংয়ের একটি বাসা থেকে মিতুকে উদ্ধার করেন। গ্রেফতার করা হয় অপহরণে অভিযুক্ত বাপ্পিকে।

পুলিশ সুপার চিকিৎসক মিতুর বরাতে জানান, মিতু তার আগের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে বাপ্পির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। আগের স্বামীর ঘরে ছেলে সন্তান এবং বাপ্পির ঘরে একটি সন্তান রয়েছে। তারা অনেক দিন আগেই বিয়ে করে সংসার করে আসছিলেন বলে সিআইডিকে জানান। যেহেতু অপহরণ মামলা হয়েছে সে কারণে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হবে। ২১ মাস ধরে চিকিৎসক মিতু মোহাম্মদপুরে চেম্বার খোলে রোগী দেখছেন। তিনি যা রোজগার করতেন তাই দিয়ে বাসা ভাড়াসহ সংসার খরচ চালাতেন বলে মিতু জানিয়েছেন। এ ছাড়াও ডা. মিতু জানিয়েছেন, বাপ্পির সঙ্গে ২১ মাস বিবাহিত জীবনে তাদের একটি পুত্রসন্তান হয়েছে। তারা সুখেই আছেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর