শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ এপ্রিল, ২০২১ ০১:০১

সরকারের সমন্বয়হীনতায় করোনার দ্রুত অবনতি

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে নেতারা বলেছেন, সরকারের সীমাহীন উদাসীনতা ও সমন্বয়হীনতার কারণে করোনা পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবায় সরকারের ভয়াবহ দুর্নীতির কারণে আজকে করোনায় চিকিৎসা ও প্রতিরোধ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে। তাছাড়া সময়মতো লকডাউন ঘোষণা না করাটাও পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে সাহায্য করেছে। স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে শনিবার রাতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে তারা সারা দেশে করোনার সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

 

স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বলা হয়, লকডাউন ঘোষণা করার পরও গণপরিবহন চালু করা, শপিং মল, দোকানপাট খুলে দেওয়া এবং গার্মেন্ট চালু রাখা- প্রমাণ করেছে যে, সরকারের সিদ্ধান্তহীনতা ও সমন্বয়ের অভাবে জনগণের জীবন ও জীবিকা বিপন্ন হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য জরুরি ভিত্তিতে মেকশিপট হাসপাতাল তৈরি করা, যথেষ্ট পরিমাণ বেড, অক্সিজেন সরবরাহ, আইসিইউ ও ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ২০২০ সালের মার্চ মাস হতে যথেষ্ট সময় হাতে পাওয়ার পরও সরকার এগুলো করতে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে আশঙ্কাজনক হারে সংক্রমণ ও মৃত্যু হার ইতিমধ্যেই জনগণের মধ্যে ভীতি ও আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে।

আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে যে লকডাউনের প্রস্তাব করা হয়েছে তাতে দিন আনে দিন খায়, মাঝারি, ছোট কল-কারখানার শ্রমিক, রিকশা-ভ্যান শ্রমিক, গণপরিবহন শ্রমিক, কৃষক এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক (ছোট ও ক্ষুদ্র) উদ্যোক্তাদের ভাতা প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

সভায় করোনার মধ্যেও দেশব্যাপী বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করতে তাদের বাসাবাড়ি, পাড়া-মহল্লায় অভিযান পরিচালনার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়। অবিলম্বে এই গ্রেফতার, হয়রানি বন্ধ এবং গ্রেফতার নেতা-কর্মীদের মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

এই বিভাগের আরও খবর