শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৯ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ মে, ২০২১ ০১:৪৬

আল্ট্রাসনোগ্রাম রিপোর্টে যমজ, সিজারে মিলল ১ সন্তান

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

Google News

সিলেটে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে আল্ট্রাসনোগ্রাম রিপোর্টে তুঘলকি কান্ড ঘটেছে। আল্ট্রাসনোগ্রামের রিপোর্টে গর্ভে যমজ শিশুর কথা উল্লেখ করা হলেও সিজারের পর পাওয়া গেছে একটি শিশু। ভুল রিপোর্ট দিলেও এ ঘটনায় ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দায়িত্বরতরা ন্যূনতম দুঃখ প্রকাশও করেননি বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী নারীর স্বজনরা। ভুল রিপোর্ট দিয়ে হয়রানির এমন অভিযোগ ওঠেছে নগরীর মধুশহীদস্থ পপুলার মেডিকেল সেন্টারের বিরুদ্ধে। গত সোমবার দুপুরে ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে এই ভুল রিপোর্ট সরবরাহ করা হয়। সিলেট শহরতলির মোগলগাঁও ইউনিয়নের মীরেরগাঁওর নাজির উদ্দিন জানান, তার ভাবি ঝর্ণা বেগমের প্রসব বেদনা উঠলে গত সোমবার সকালে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে তাকে পপুলার মেডিকেল সেন্টারে এনে আল্ট্রাসনোগ্রাম করা হয়। আল্ট্রাসনোগ্রামের পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৌখিকভাবে জানান ঝর্ণার গর্ভে যমজ শিশু রয়েছে। দুপুরে প্রদান করা রিপোর্টেও যমজ শিশুর কথা উল্লেখ করা হয়। গর্ভে যমজ শিশুর রিপোর্ট পেয়ে ঝর্ণা বেগমকে ওসমানী হাসপাতাল থেকে এনে নগরীর একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে সিজারের মাধ্যমে ঝর্ণা বেগম একটি শিশুর জন্ম দেন। সিজারের পর চিকিৎসক জানান, গর্ভে একটিমাত্র শিশু ছিল। নাজির উদ্দিন জানান, এরপর তারা রিপোর্টটি নিয়ে পপুলার মেডিকেল সেন্টারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। কিন্তু সেখান থেকে কোনো সদুত্তর পাননি। সিজারের কারণে তার ভাবি শারীরিক, মানসিক ও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে দাবি করেন নাজির উদ্দিন। এ ব্যাপারে পপুলার মেডিকেল সেন্টারের ব্যবস্থাপক চন্দন আচার্য্য জানান, আল্ট্রাসনোগ্রামের ভুল রিপোর্ট নিয়ে তাদের কাছে কেউ অভিযোগ করেননি। তবে সাংবাদিকদের মাধ্যমে তিনি বিষয়টি জেনেছেন। বিষয়টি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবর