শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ এপ্রিল, ২০২০ ১১:৩৪
আপডেট : ৬ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:১২

বরিস জনসন হাসপাতালে শুনে যা বললেন ট্রাম্প

যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি

বরিস জনসন হাসপাতালে শুনে যা বললেন ট্রাম্প
বরিস জনসন (বামে) ও ডোনাল্ড ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বরিস জনসনের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘গোটা আমেরিকা বরিস জনসনের জন্য প্রার্থনা করছে। তিনি (বরিস জনসন) আমার ভাল বন্ধু, সজ্জন মানুষ ও বড় নেতা।’

ট্রাম্প আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন দ্রুতই সেরে উঠবেন, কারণ তিনি শক্তিশালী মানুষ।

চিকিৎসক সারাহ জারভিস বিবিসিকে বলেছেন, বরিস জনসনের বুকের এক্সরে হবে। ফুসফুসেরও পরীক্ষা হবে। তার শ্বাসকষ্ট হচ্ছে কি না, বুঝতে এই পরীক্ষা দুটো করার কথা। হাসপাতাল থেকে ছাড় পাওয়ার আগে হৃদযন্ত্র ঠিকঠাক কাজ করছে কি না, দেখতে ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম করার কথা আছে। তাছাড়া অক্সিজেনের মাত্রা, শ্বেত কণিকার পরিমাণ, লিভার ও কিডনি পরীক্ষা করে দেখা হবে।

গত ২৭ মার্চ করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর থেকে বরিস জনসন বাসায় থেকে কাজ করছিলেন। সবশেষ তাকে জনসমক্ষে দেখা গেছে, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়। ডাউনিং স্ট্রিটের বাসভবন থেকে এনএইচএসের কর্মীদের ওই দিন তিনি প্রশংসা করেন।

এর পর দিন করোনাভাইরাস নিয়ে একটি বৈঠকে দূর থেকে সভাপতিত্ব করেন তিনি। শুক্রবার টুইটারে প্রকাশিত এক ভিডিওতে তিনি জানান, এখনও তার উপসর্গগুলো রয়ে গেছে।

বরিস জনসনের বান্ধবী ক্যারি সিমন্ডস অন্তঃসত্ত্বা। তার মধ্যেও করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছে। তবে উপসর্গ থাকা সত্ত্বেও তিনি পরীক্ষা করে তা নিশ্চিত হতে চান না। তাছাড়া, তার করোনার কী কী লক্ষণ বা উপসর্গ রয়েছে, এ বিষয়েও বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।

এছাড়া ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সরকারের প্রধান স্বাস্থ্য পরামর্শকের মধ্যে উপসর্গ দেখা দেওয়ার পর তারা সেলফ-আইসোলেশনে রয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য