শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:৫৮

নির্মাণের দুই দিন পর উঠে গেল সড়কের কার্পেটিং

সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

নির্মাণের দুই দিন পর উঠে গেল সড়কের কার্পেটিং

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার খামার পাইকশায় রাস্তা নির্মাণের দুই দিন পরই রাস্তার কার্পেটিং উঠে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় সড়কটি এমন বেহালদশা হয় বলে দাবি স্থানীয়দের।  স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ সূত্র জানায়, ৩ কোটি ২৮ লাখ টাকা ব্যয়ে বহুলী জিসি-কোনাবাড়ি এনএইচডাব্লিউ ভায়া চন্ডিদাসগাঁতী হাট রোড নামে ৩ হাজার ৬৭০ মিটার এ সড়কটির নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের ১৬ জুলাই। প্রথমদিকে ৩০ অক্টোবর ২০১৯ কাজটি শেষ করার মেয়াদ থাকলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়। অভিযোগ আছে অনিয়ম ও নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার করেই রাস্তাটির বেশিরভাগ কাজ শেষ হয়েছে। খামার পাইকোশা গ্রামের অনেকে জানান, মাত্র দুই দিন আগে কার্পেটিং করা হয়েছে। এখন একটা ধরে টান দিলেই পুরো কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। ছোট ছোট ছেলে-মেয়েরা টেনে কার্পেটিং তুলে ফেলছে। কাজ চলাকালে স্থানীয় সরকার বিভাগকে অভিযোগ দিয়ে ফল হয়নি। উল্টো ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন গ্রামবাসীকে হুমকি দিচ্ছে। এমনকি গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সড়কের ছবি তুলতে আসায় পাঁচ সাংবাদিককে মারপিট করা হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আজাদুল ইসলাম বলেন, রাস্তার কাজ খারাপ হওয়ার কারণে স্থানীয় লোকজন বেশকিছু স্থানে পিচ ঢালাই করা কার্পেটিং তুলে ফেলেছে। সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী আবু সায়েদ জানান, এর আগেও নি¤œমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগে ওই সড়কটির নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হয়েছিল। পরবর্তীতে ইট পরীক্ষা করে আবারও কাজ শুরু করা হয়।

গত বুধবার সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা আমরা জানতে পেরে আবারও কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। বিটুমিনসহ অন্য উপকরণ পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর কাজ শুরুর অনুমতি দেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর