শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:২২

অ্যাম্বুলেন্স দালালের দৌরাত্ম্য

জিম্মি রোগীর স্বজনরা ॥ নিচ্ছে অতিরিক্ত টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

অ্যাম্বুলেন্স দালালের দৌরাত্ম্য
রমেক হাসপাতাল চত্বরে রাখা অ্যাম্বুলেন্স -বাংলাদেশ প্রতিদিন

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পাশেই নগরীর মুন্সিপাড়া এলাকা। ওই এলাকার বাসিন্দা আবু মিয়া হৃদরোগে আক্রান্ত হলে গত রবিবার রাতে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই মারা যান তিনি। লাশ বাড়িতে নেওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করতে গিয়ে বিপাকে পড়েন মৃতের ভাতিজা শাহাজান হোসেন রতন। হাসপাতাল থেকে বাড়ির দূরুত্ব এক কিলোমিটারের একটু বেশি হবে। অ্যাম্বুলেন্স চালকরা ভাড়া চাইলেন তিন হাজার টাকা। অনেক দর কষাকষি করে দেড় হাজার টাকায় লাশ বাড়িতে আনেন। কামাল কাছনা এলাকার মোতাহার হোসেন নামে এক ব্যক্তি তার ভাইয়ের লাশ বাড়িতে আনতে গিয়ে একই রকম বিড়ম্বনায় পড়েন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, লাশ বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সের দালালরা সকাল থেকে রাত পর্যন্ত হাসপাতালের প্রতিটি ওয়ার্ডে শকুনের মতো ঘোরে। কোনো রোগী মারা গেলেই শুরু হয় টানা হেঁচড়া। হাসপাতাল চত্বরে অবস্থানরত দালাল চক্রের অ্যাম্বুলেন্সেই লাশ বহন করতে হবে দ্বিগুণ তিনগুণ ভাড়ায়। বাইরে থেকে কেউ লাশ বহনের জন্য গাড়ি আনলে তাতে বাধা দেওয়া হয়। কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত হতে হয়। লাশ নিয়ে প্রতিদিনই এমন বিড়ম্বনার শিকার হন স্বজনরা।  লালমনিরহাটের এক রোগীর স্বজন নাঈম হোসেন জানান, রংপুর থেকে লালমনিরহাটের অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া সাধারণত তিন হাজার টাকার বেশি নয়। কিন্তু তার এক আত্মীয়র লাশ আনতে অ্যাম্বুলেন্স দালালরা ছয় হাজার টাকা নিয়েছে। হাসপাতালে কিছু কর্মচারির যোগসাযশে গড়ে উঠেছে এ সিন্ডিকেট। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. রোস্তম আলী জানান, খোঁজখবর করে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর