শিরোনাম
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪ ০০:০০ টা
সংক্ষিপ্ত

দুই বছর পর যুবকের লাশ উত্তোলন

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের গুরুদাসপুরে নিখোঁজের দুই বছর পর মফিজুল ইসলাম নামে এক যুবকের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশে গতকাল গুরুদাসপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেহেদি হাসান শাকিলের উপস্থিতিতে উপজেলার চাঁচকৈড় এলাকার একটি মহিলা মাদরাসার সেফটিক ট্যাংকের পাশে পুঁতে রাখা লাশ উত্তোলন করা হয়। এ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে র‌্যাব ৫ শনিবার সিরাজগঞ্জের গোলচত্বর থেকে আশরাফুল ইসলাম নামে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ২০২২ সালের ১৭ এপ্রিল থেকে নাটোরের গুরুদাসপুর পৌরসভার খলিফাপাড়া মহল্লার মাফিজুল ইসলাম (২৫) নিখোঁজ ছিলেন। দুই বছর পর গত শুক্রবার জানা যায় তাকে খুন করা হয়েছে। তার লাশ উপজেলার চাঁচকৈড় পুরানপাড়া এলাকার একটি বালিকা মাদরাসার সেপটিক ট্রাংকের পাশে পুঁতে রাখা হয়। অন্য একটি মামলায় কারাগারে আটক আল হাবিব সরকার নামে এক আসামি জাকির মুন্সি তার এক হাজতি বন্ধুর কাছে মফিজুলকে খুন করার গল্প বলে। ওই হাজতি জামিনে ছাড়া পেয়ে মফিজুলকে খুন করার বিষয়টি নিহতের পরিবারকে জানালে তারা থানা পুলিশের আশ্রয় নেন। শুক্রবার রাতে নিহত মফিজুলের মা মাইনুর বেগম বাদী হয়ে গুরুদাসপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনায় মাদরাসার নৈশ প্রহরী আবু তাহের খলিফা, তার মেয়ে তানজিলা খাতুন, মেয়ে জামাই আল হাবিব সরকার এবং তাদের আত্মীয় আশরাফুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার তানজিলা খাতুন ও তার বাবা আবু তাহের খলিফা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনাটি স্বীকার করেছেন। আল হাবিবের স্ত্রী তানজিলা খাতুনের সঙ্গে পরকীয়ার কারণে মফিজুলকে খুন করে লাশ পুঁতে রাখা হয় বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

 

সর্বশেষ খবর