শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ২০:১৮

কুমিল্লায় প্যাথলজি কর্মচারীর আত্মহত্যা

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লায় প্যাথলজি কর্মচারীর আত্মহত্যা
প্রতীকী ছবি

কুমিল্লায় প্রবাসী স্বামীর সাথে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে তানিয়া (২২) নামে হাসপাতালের এক প্যাথলজি কর্মচারী আত্মহত্যা করেছে। 

বুধবার নগরীর ছোটরা এলাকায় হক মঞ্জিলে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে।
তানিয়া বাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা থানার কুটি এলাকার বাসিন্দা। তানিয়া এবং তার মা মরিয়ম আক্তার ছোটরা হক মঞ্জিলের ভাড়াটিয়া। তিনি নগরীর পুলিশ লাইনের এলাকায় একটি হাসপাতালের প্যাথলজিতে কাজ করতেন। 
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তার স্বামী আজহারুল ইসলাম একজন সৌদি প্রবাসী। আত্মহত্যার পূর্বে তার স্বামীর সাথে মোবাইল ফোনে কথা কাটাকাটি হয়। এর কিছুক্ষণ পরে তানিয়া গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।
তানিয়ার মা মরিয়ম আক্তার বলেন, মোবাইল ফোনে পরিচয়ে ৮ বছর আগে তানিয়ার বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর থেকেই তানিয়া ও তার স্বামীর মধ্যে সব সময় বিরোধ লেগে থাকতো। মেয়ের মা আরও বলেন, তিনি কাজে বের হওয়ার পর তানিয়ার স্বামী প্রবাস থেকে আমার কাছে মোবাইল ফোনে বলেন, আপনি তাড়াতাড়ি বাসায় যান তানিয়া কি যেন করেছে।
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সরকার মাহমুদ জাবেদ বলেন, পুলিশের সহায়তায় দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ঝুলন্ত অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 
কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার এসআই মাহাবুব বলেন, মৃত্যুর এখনও কোন সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। মরদেহ ময়নাতন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য