Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ অক্টোবর, ২০১৯ ২১:০২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ই-ট্রাফিক সিস্টেম সেবা চালু

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ই-ট্রাফিক সিস্টেম সেবা চালু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে ই-ট্রাফিক সিস্টেম সেবা চালু করা হয়েছে। ডিজিটাল সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্তের আলোকে মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক বেলুন উড়িয়ে ও ফিতা কেটে এ সিস্টেমের উদ্বোধন করেন। 

জেলা পুলিশের আয়োজনে শহরের পুলিশ লাইনস ড্রিল শেড এলাকায় এক অনুষ্ঠানে এসময় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার। 

এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) মো.আলমগীর হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রেজাউল কবীর, শ্রমিক নেতা জসীম উদ্দিন জমসেদ সহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। 

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান জানান, ই-ট্রাফিক সিস্টেমের “পস-ডিভাইস” এর মাধ্যমে যানবাহনের রেজিস্ট্রেশন নাম্বার, চেসিস ও ইঞ্জিন নাম্বার, ড্রাইভিং লাইসেন্স যাচাই-বাছাই, গাড়ির ট্যাক্স টোকেন সংক্রান্ত তথ্য তাৎক্ষণিকভাবে যাচাই বাছাই করা যাবে। ই-ট্রাফিক সিস্টেম চালু হওয়ার ফলে মামলার দীর্ঘসূত্রতা কমবে, ব্যক্তির সময় বাঁচবে। 

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ট্রাফিক পুলিশ বর্তমানে একটি ছক বাঁধা কাগজে মামলা লিখে দেয়। পরবর্তীতে উক্ত মামলার জরিমানা ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে চালক অথবা মালিক নিজে সোনালী ব্যাংকে গিয়ে জমা প্রদান করে। কিন্তু এই ই-ট্রাফিক সিস্টেম চালু হলে এ ভোগান্তি লাঘব হবে। ট্রাফিক কর্মকর্তা শুধু আইন লংঘনকারী গাড়ি বা চালকের তথ্য, জব্দ করা দলিলের তথ্য লিখে লংঘিত আইনের ধারা উল্লেখ করে মামলার ডাটা ইনপুট দিবে। এরপর ওই যন্ত্র থেকে একটি কাগজের স্লিপ বের হয়ে আসবে। স্লিপটিতে অপরাধের ধরণ অনুযায়ী জরিমানার টাকার পরিমাণ উল্লেখ থাকবে। এরপর উক্ত ব্যক্তি নিজে অথবা বিকাশের মাধ্যমে উল্লিখিত জরিমানার টাকা পরিশোধ সাপেক্ষে মামলা নিষ্পত্তি করে জব্দকৃত দলিল তাৎক্ষণিকভাবে নিয়ে যেতে পারবে।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য