শিরোনাম
প্রকাশ : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:৩০
আপডেট : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:৩০

প্রেমের টানে ইতালির তরুণী এখন লক্ষ্মীপুরে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

প্রেমের টানে ইতালির তরুণী এখন লক্ষ্মীপুরে

কথায় আছে প্রেম মানে না কোনো বাধা, ধনী-গরিবের কোনো ভেদাভেদ, ধর্ম-বর্ণ কিংবা দেশ। সে কথা আবারও প্রমাণিত হলো। প্রেমের টানে এবার ইতালি ছেড়ে বাংলাদেশি যুবকের লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের গ্রামের বাড়িতে ছুটে এসেছেন এক তরুণী। 

এর আগে, গেল বছর আমেরিকার এক তরুণী প্রেমের টানে ছুটে আসেন এ জেলায়। ইতাালি থেকে আসা ওই তরুণী ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। নতুন নাম রাখা হয়েছে খাদিজা আক্তার। যার প্রেমের টানে ওই তরুণী দেশ ছেড়ে আসলেন  সে যুবকের নাম ইকবাল হোসেন। তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন বৃহস্পতিবার রাতে। 

এদিকে, ঘটনাটি জানাজানির পর প্রেমিক ইকবালের বাড়িতে উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের বিয়ের ছবি এখন ভাইরাল।

যুবক ইকবাল জেলার রায়পুর উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম সোনাপুর গ্রামের ওসমান আলী পাটোয়ারী বাড়ির আক্তার হোসেনের ছেলে।

জানা যায়, প্রায় ৬ বছর আগে ইকবাল ইতালিতে গিয়ে ওই তরুণীদের একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। সে সুবাদে তরুণীর সঙ্গে ইকবালের পরিচয় ও প্রেম হয়। এরপর প্রায় ২ বছর আগে ইকবাল বাংলাদেশে চলে আসেন। পরে প্রবাসী ওই তরুণী মোবাইলফোন ও ফেসবুকের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক অব্যাহত রাখে।

এদিকে, কাগজপত্রের কিছু ত্রুটিতে ইকবাল ফের ইতালিতে যেতে পারছিলেন না। তাই বৃহস্পতিবার রাতে ওই তরুণী রায়পুরে ইকবালের গ্রামের বাড়িতে চলে আসেন। এ সময় রায়পুর উপজেলার নতুন বাজার এলাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক তাদের দু’জনের বিয়ে হয়। এর আগে তরুণী ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে খাদিজা আক্তার নাম গ্রহণ করেন। ভাষাগত কিছু সমস্যা থাকলেও বাঙালি নারীর মতোই স্বাভাবিকভাবে সব কাজ করছেন খাদিজা। বাঙালি পোশাকও পরছেন সে। 

তাদের প্রেমের এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শুক্রবার দিনব্যাপী দূর-দূরান্ত থেকে বহু মানুষ তাদের এক নজর দেখতে ছুটে আসে ওই বাড়িতে।

সন্ধ্যায় এই দম্পতি মধু চন্দ্রিমার উদ্দেশে বাড়ি থেকে কক্সবাজার রওয়ানা হন। সেখান থেকে তারা মধু চন্দ্রিমার জন্য মালয়েশিয়া যাওয়ার কথা রয়েছে বলে জানায় তার পরিবার।

শ্বশুর বাড়িতে ইকবালের সঙ্গে প্রেম, বিয়ে ও বাংলাদেশ সম্পর্কে খাদিজা তার অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও পরিবেশ তার অনেক ভালো লেগেছে। ইকবালকে তিনি অনেক ভালোবাসেন। তার জন্যই বাংলাদেশে আসা। তারা দুজন মধু চন্দ্রিমায় কক্সবাজার ও মালয়েশিয়া যাবেন। এ জন্য তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

ইকবালের বাবা আক্তার হোসেনও ছেলে ও পুত্রবধূর জন্য দোয়া চেয়েছেন। ছেলের বউ দেখে খুশি হয়েছেন বলেও জানান তিনি।  

রায়পুর উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেন বলেন, প্রেমের টানে ইতালির তরুণী রায়পুরে এসেছে। উভয়ের পরিবার প্রেমের সম্পর্কটি মেনে নেওয়ায় তাদের বিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইকবালের বাবা-মা সকল রীতি মেনে বউকে বরণ করে নিয়েছেন। তাদের ভালোবাসার জয় হয়েছে।  


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য