শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:০৪
প্রিন্ট করুন printer

কনকনে ঠাণ্ডায় আবারও জবুথুবু কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কনকনে ঠাণ্ডায় আবারও জবুথুবু কুড়িগ্রাম

শীত ও কনকনে ঠাণ্ডায় ফের কাবু হয়ে পড়েছে উত্তরের জনপদ কুড়িগ্রাম। মঙ্গলবার পুরো দিন কেটে গেলেও সূর্যের দেখা মেলেনি। সেই সাথে উত্তরীয় হিমেল হাওয়া বাড়িয়ে দিয়েছে ঠাণ্ডার মাত্রা। এ অবস্থায় ব্যাহত হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক জীবন যাত্রা।

এর আগে গত তিনদিন ধরে দিনের বেলা সূর্যের দেখা মিললেও রাত ৮ টার পর ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছিল প্রকৃতি এবং তা অব্যাহত ছিল সকাল ১০টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত। কিন্তু মঙ্গলবার দিনভর সূর্যের দেখা পাননি এ জনপদের মানুষ। কুয়াশায় ঢেকে গেছে গোটা অঞ্চল।

স্থানীয় আবহাওয়া অফিসের কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ সুবল চন্দ্র সরকার জানান, মঙ্গলবার জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস।তিনি বলেন,মৃদু শৈত্য প্রবাহ আবারো শুরু হয়েছে। 

এদিকে, ঠাণ্ডার মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় সবচেয়ে বিপাকে পড়েছেন জেলার কৃষি শ্রমিকরা। বোরো চাষের ভরা মৌসুম চললেও কনকনে ঠাণ্ডায় শ্রমিকরা ঠিকমত মাঠে কাজ করতে না পারায় ব্যাহত হয়ে পড়েছে বোরো আবাদ। কনকনে ঠাণ্ডায় গরম কাপড়ের অভাবে দুর্ভোগ বেড়েছে ছিন্নমূল, হতদরিদ্র পরিবারের শিশু ও বৃদ্ধরা।

রাজারহাট উপজেলার উমরমজিদ ইউনিয়নের কৃষি শ্রমিক মজনু মিয়া বলেন, এরকম ঠাণ্ডায় এমনিতেই হাত-পা বাইরে রাখা মুশকিল হয়ে পড়েছে। তার উপর পানিতে নেমে রোয়া লাগানো খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে। হলোখানা ভেরভেরির রিকশাচালক সফিকুল জানায়, ‘কনকনে ঠান্ডাত কতক্ষণ এস্কা চালান ভাই। শিরশির বাতাস জামা-কাপড় ছেদ করি ঢুকে। ঠান্ডাত টেকা যায়না।’

অন্যদিকে অবিরাম গত দুই সপ্তাহেরও বেশি ঠাণ্ডা ও শীতে জেলার হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে শীত জনিত রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বিশেষ করে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্টসহ নানা শীত জনিত রোগে। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৩:৫০
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৬:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

ফেনীতে কারখানায় আগুন

ফেনী প্রতিনিধি

ফেনীতে কারখানায় আগুন
আগুনে প্রায় ৩০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে

ফেনীর কাশেমপুরে স্টার লাইন ফুড প্রোডাক্টের কারখানায় ভয়াবহ আগ্নিকাণ্ড হয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট। গতরাত  সাড়ে ১২টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। সকাল ৬টা পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। 

আগুনে নুডুলস, সেমাই ও বিস্কুট ফ্যাক্টরী প্রায় পুরোপুরি পুড়ে গেছে। পরবর্তীতে গোডাউনেও আগুন লেগে যায়। 

স্টার লাইন গ্রুপের পরিচালক জাফর উদ্দিন জানান, আগুনে প্রায় ৩০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। ফায়ার সার্ভিস আগুনের সূত্রপাত কোথায় থেকে হয়েছে এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমান এখনও জানাতে পারেনি।

কাগজের একটি বন্ধ গোডাউন থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে জানা যায়। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ 

 
 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০১:৩২
প্রিন্ট করুন printer

কুমিল্লার দেবিদ্বারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অবরুদ্ধ, গাড়ি ভাঙচুর

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অবরুদ্ধ, গাড়ি ভাঙচুর

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদসহ জেলা নেতারা অবরুদ্ধ রয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা অবরুদ্ধ ছিরেন। 

ভাঙচুর করা হয়েছে প্রচারণার কয়েকটি গাড়ি। দেবিদ্বার উপজেলা সদরের মা-মনি হসপিটালের উপরে তিনতলার মিলনায়তনে তাদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। 

হাসপাতালের নিচে প্রতিপক্ষ অবস্থান নিয়ে ফাঁকা গুলি করছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। এতে রাত গভীরে উপজেলা সদরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ মোবাইল ফোনে জানান, এখানে তাদের কর্মিসভা ছিল। সেখানে বিএনপি-জামায়াতের লোকজন হামলা চালিয়েছে। তাদের তালা মেরে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। পুলিশের উপস্থিতিতে তাদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। এনিয়ে ওসিকে জানালেও তিনি কোনো ভূমিকা নেননি।

এ বিষয়ে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী এ এফ এম তারেক মুন্সী বলেন, তাদের অবরুদ্ধ করার মতো অবস্থা আমাদের নেই। এটা তাদের দুই গ্রুপের সমস্যা।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমেদ বলেন, সেখানে দুই পক্ষের মধ্যে একটা সমস্যা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চলছে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ 

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:২৭
প্রিন্ট করুন printer

একই দোকানে দ্বিতীয়বার স্বর্ণালঙ্কার চুরি করতে এসে ধরা নারী মেম্বার

কুমিল্লা প্রতিনিধি

একই দোকানে দ্বিতীয়বার স্বর্ণালঙ্কার চুরি করতে এসে ধরা নারী মেম্বার

একটি ইউনিয়নের নারী সদস্যের নেতৃত্বে প্রথমবার স্বর্ণ চুরি করে পার পেয়ে গেলেও দ্বিতীয়বার ধরা খেলেন তিন সদস্যের চক্রটি। দোকান মালিকের সন্দেহ হওয়ায় তাদের আটক করে তল্লাশি চালাতে বের হয়ে আসে স্বর্ণালঙ্কার। পরে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে একমাস আগের চুরির সাথেও তাদের জড়িত থাকাটি নিশ্চিত হয় দোকানদার।

এমন ঘটনা ঘটেছে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা সদরে আপন অর্নামেন্টস নামক একটি জুয়েলারি দোকানে। পরে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন কক্সবাজার জেলার চকরিয়া থানার ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান প্যানেল চেয়ারম্যান সংরক্ষিত নারী সদস্য মোসা. আরজ খাতুন (৫২), একই গ্রামের ফররুখ আহম্মদের ছেলে শাহাদত হোসেন (২০) ও কুমিল্লা নগরীর কালিয়াজুরি এলাকার রাসেল মিয়ার স্ত্রী পাখি বেগম (৩৫)। 


এ ঘটনায় দোকান মালিক জয়নাল আবেদীন আপন বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করলে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, গত ১৯ জানুয়ারি বেলা ১১টার দিকে দেবিদ্বার উপজেলা সদরের আপন অর্নামেন্টস নামক জুয়েলারি দোকান থেকে ৩ ভরি ওজনের ২টি স্বর্ণের চেইন, ১ জোড়া কানের দুল চুরি হয়। ওইদিন রাতে স্টক হিসেবে গড়মিল দেখে সিসিটিভি ফুটেজে নারী চোরের মাধ্যমে চুরির বিষয়টি নিশ্চিত হয় দোকান মালিক। কিন্তু তাদের হদিস পাওয়া যায়নি।

ঘটনার এক মাস পর গত ২২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে পুনরায় তারা এ দোকানে আসে। স্বর্ণের  গহনা ক্রয়ের কথা বলে গয়না ঘেটে দেখার একপর্যায়ে কৌশলে একটি নাকফুল ও একটি আংটি চুরি করে দোকান ত্যাগ করে। দোকানী স্বর্ণ গুছিয়ে রাখার সময় গহনা গড়মিল দেখে তাদের ডেকে এনে নাকফুল ও আংটি উদ্ধার করেন। পরে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে আগের চুরির ঘটনায় তাদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হয়।

দেবিদ্বার থানার ওসি জহিরুল আনোয়ার জানান, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে একমাস আগে চুরির ঘটনায় সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দোকান মালিক বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:০৮
প্রিন্ট করুন printer

রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযান

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযান

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অবস্থিত শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা করেছে বিআইডব্লিউটি। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারী) সকালে উপজেলার তারাবো পৌরসভার নোয়াপাড়া হতে কাজীপাড়া পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। 

বিআইডব্লিউটি এর নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহাবুব জামিলের নেতৃত্বে চলে এ উচ্ছেদ অভিযান। শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা দোতলা ভবনসহ ৭/৮ টি দোকান ঘর প্রায় অর্ধশতাধীক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিআইডব্লিউটি এর যুগ্ন-পরিচালক মাসুদ কামাল, সহকারী পরিচালক নুর হোসেন প্রমুখ।

বিআইডব্লিউটি এর নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহাবুব জামিল বলেন, সরকারি যায়গায় অবৈধভাবে গড়ে তোলার কারনে একটি দোতলা ভবনসহ ৭/৮ টি দোকানঘরসহ প্রায় অর্ধশতাধীক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। নোয়াপাড়া থেকে কাঞ্চন ব্রীজ পর্যন্ত নদীর দুই পাশে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা সকল প্রকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।  

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:০৩
প্রিন্ট করুন printer

ভোলায় রিক্সা চালকের মরদেহ উদ্ধার

ভোলা প্রতিনিধি:

ভোলায় রিক্সা চালকের মরদেহ উদ্ধার

ভোলা সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের রতনপুর এলাকার বাগান থেকে শ্রমজীবী রিক্সা চালক জাকিরের (৪০) মরদেহ বুধবার সকালে পুলিশ উদ্ধার করেছে। তবে রহস্যজনক এই মৃত্যুর ঘটনায় কোনো কারণ পুলিশ এখনো উৎঘাটন করতে পারে নি।

পুুলিশ ও স্বজনের স্ত্রী জানান, জাকির রিক্সা চালাতো ও  মানুষের বাড়িতে দিনমজুর হিসাবে কাজ করতো। মাঝে মাঝে সে বাড়ির বাইরে রাতে থাকতো। মঙ্গলবার বিকালে মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে কাপড় কিনতে রতনপুর বাজারে যায়। কিন্তু রাতে সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পরিবারের সদস্যরা ধারনা করেছিলো  কাজে বাড়ির বাইরে রাতে রয়েছে। কিন্তু সকলে শিবপুর হাওলাদারদের বাগানে তার মৃতদেহ দেখে স্বজনরা জানতে পারে এবং স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।

ভোলা মডেল থানার ওসি এনায়েত হোসেন জানান, তারা খবর পেয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। মৃতদেহের ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ব্যাপারে ভোলা থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ পুলিশ বলতে পারেনি।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর