শিরোনাম
প্রকাশ : ৩১ মে, ২০২১ ১৫:৪০
প্রিন্ট করুন printer

শাজাহানপুরে এক মাসে তিন খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

শাজাহানপুরে এক মাসে তিন খুন
Google News

বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলায় খুনের ঘটনা বেড়েই চলেছে। গত এক মাসে শাজাহানপুরেই ঘটেছে ৩টি খুনের ঘটনা। একের পর এক খুনের ঘটনায় ব্যতিব্যস্ত থাকতে হচ্ছে পুলিশ সদস্যদের। আসামি গ্রেফতার থেকে শুরু করে মামলা তদন্তেই চলে যাচ্ছে অধিকাংশ সময়। অপরদিকে, খুনি চক্র আধিপত্য নিয়ে এলাকায় একের এক ত্রাসমূলক কর্মকাণ্ড করে যাচ্ছে। গ্রেফতার থাকলেও নতুন নতুন চক্র তৈরি হওয়ায় থেমে থাকছে না অপরাধকর্ম।

জানা যায়, গত ৪ মে সকাল সাড়ে ১০টার সময় বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে শাজাহানপুর উপজেলার পারতেখুর এলাকায় অটোরিকশা থামিয়ে মোজাফ্ফর রহমান (৬০) নামের এক কবিরাজকে গুলি করে হত্যা করা হয়। হত্যার রহস্য এখনো অজানা। মোজাফ্ফর রহমান দ্বিতীয় বিয়ে করলেও সে কবিরাজির মাধ্যমে কথিত জ্বীনের মাধ্যমে সে নানা অসাধন কাজ সাধন করতো। সে আইপিএলের জুয়ারিদের জন্যও কাজ করতো। নারী পুরুষের সংসার ভাঙ্গা, সংসার জোড়া লাগানোর দেওয়ার কাজও করতো।

মোজাফ্ফর রহমানের খুনের ঘটনায় বগুড়া শহরের ছিলিমপুর বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, নিহত মোজাফ্ফর নাটোরের সিংড়া উপজেলার সুকাশ গ্রামের সায়েদ আলীর ছেলে। তিনি বগুড়া শহরের নিশিন্দারা মধ্যপাড়ায় থাকতেন এবং সেখানেই গড়া দারুল উলুম হেদায়েত মাদরাসার পরিচালক ছিলেন। দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলে এসে অটোরিকশার পথরোধ করে গুলি করে তাকে হত্যা করে। 

জানা গেছে, এই হত্যার পিছনে ছুটতে হচ্ছে পুলিশ সদস্যদের কিন্তু প্রায় একমাসেও কোন ক্লু উদ্ধার করতে পারেনি।

গত ২৭ মে রাত সাড়ে ৯টায় উপজেলার সুজাবাদ উত্তরপাড়া মাদরাসার বারান্দায় গাঁজা সেবনে বাধা দেওয়ায় মাদরাসার নৈশ প্রহরী শাজাহানপুর উপজেলার খোট্টাপাড়া গ্রামের মৃত মিরবক্সের পুত্র জয়নাল আবেদীন (৭০)-কে গলা কেটে হত্যা করা হয়। রাতে খুনের পর সকালে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে লাশ দেখতে যাওয়া শাজাহানপুর উপজলোর সাজাপুর উত্তরপাড়ার মিঠু মিয়ার ছেলে তানভিরুল ইসলাম তানভির (২২) চতুরতার আশ্রয় নিলে পুলিশ তাকেআটক করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বীকার করে গাঁজা সেবনে বাধা দিলে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সে জয়নাল আবেদীনকে গলা কেটে হত্যা করে। তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলায় দায়ের হয়েছে। 

চলতি মে মাসের সর্বশেষ গতকাল রবিবার (৩০ মে) রাত ৮টার সময় শাজাহানপুরের সাবরুল বাজারে প্রকাশ্যে শিহাব উদ্দিন বাবু (৩৫) নামের এক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত বাবু শাজাহানপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এবং সাবরুল বাজার এলাকার মৃত সিরাজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি সাবরুল বাজারের শহিদুল মৎস্য ভান্ডারের স্বত্বাধিকারী। শিহাব স্বেচ্ছাসেবকলীগ কর্মী আবু বকর সিদ্দিক হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ছিল। 

বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, শিহাব উদ্দিন বাবু সাবরুল বাজার থেকে বাজার করে বাড়ি ফেরার সময় এসময় একদল দুর্বৃত্ত তাকে ঘিরে ফেলে। বাজারে লোকজন কিছু বুঝে ওঠার আগেই দুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। 

বগুড়ার শাজাহানপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রাজ্জাক জানান, সাবরুল বাজার এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে হত্যাকাণ্ডের কারণ নিশ্চিত করা যায়নি। তবে দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত করতে পুলিশ সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছে।

নিহত সিহাব উদ্দিন বাবুর মা মোরশেদা বেগম জানায়, একটি মাত্র সন্তান হারিয়ে তারা নিঃস্ব। তিনি বাড়িতে বাবুর গর্ভবতী স্ত্রী ও ৪ বছরের মেয়ে সন্তান নিয়ে আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল ও মিডিয়া) ফয়সাল মাহমুদ জানান, হত্যাকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধান এবং জড়িতদের শনাক্তপূর্বক গ্রেফতারে পুলিষী অভিযান চলছে। দ্রুতততম সময়ের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের আসামীদের গ্রেফতার করা যাবে। পুলিশ তার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। 

 

বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ

এই বিভাগের আরও খবর