শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জুন, ২০২১ ২০:৩০
আপডেট : ২০ জুন, ২০২১ ২০:৩৬
প্রিন্ট করুন printer

পানি বেড়েছে তিস্তায়, আতঙ্কিত ৬৩ চরের মানুষ

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

পানি বেড়েছে তিস্তায়, আতঙ্কিত ৬৩ চরের মানুষ
Google News

ভারি বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে তিস্তায় আবারও পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে তিস্তার পানি ভয়াবহ রূপধারণ করছে। এতে তিস্তার ৬৩ চরের মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। 

রবিবার (২০ জুন ) সন্ধ্যা ৬ টায় দেশের বৃহত্তম সেচপ্রকল্প লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারেজ ডালিয়া পয়েন্টে পানিপ্রবাহ রেকর্ড করা হয় ৫২ দশমিক ৪৫ সেন্টিমিটার। যা বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার নিচে (স্বাভাবিক ৫২ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার) দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে ব্যারাজের ৪৪টি গেট খুলে দেয়া হয়েছে।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্র জানায়, রবিবার সকাল ৯টা থেকে থেকে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। সকাল ৯টায় তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে  ৫২ দশমিক ২০ সেন্টিমিটার, দুপুর ২ টায় পয়েন্টে  ৫২ দশমিক ৩০ সেন্টিমিটার ও সন্ধ্যা ৬টায় পয়েন্টে  ৫২ দশমিক ৪৫ সেন্টিমিটার রয়েছে। যা বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার (৫২.৪৫ সেন্টিমিটার) নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

জানা গেছে, তিস্তার পানি বৃদ্ধির ফলে দেখা দিয়েছে ভয়াভয় ভাঙন। গত ১০ দিনে তিস্তার ভাঙনে প্রায় ৩০টি পরিবারের ঘর বাড়ি নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। এদিকে আদিতমারী উপজেলার মহিষখোঁচা ইউনিয়নের কুটিরপাড় এলাকার এক কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের একটি বালুর বাঁধ ভাঙতে শুরু করেছে। সদর উপজেলার গোকুন্ডা ও আদিতমারী উপজেলার মহিষখোঁচা ইউনিয়নে তিস্তার ভাঙন বেড়েই চলেছে। ফলে সেখানকার মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।

এ বিষয়ে ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রাপ্ত) (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল আল মামুন বলেন, ‘উজানের পানি ও বৃষ্টির কারণে তিস্তা নদীর পানি হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এভাবে পানি বাড়তে থাকলে বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।’


বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর