শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জুন, ২০২১ ২০:০৫
প্রিন্ট করুন printer

সাদুল্যাপুরে দাফনের ১৮ দিন পর লাশ উত্তোলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি

সাদুল্যাপুরে দাফনের ১৮ দিন পর লাশ উত্তোলন
প্রতীকী ছবি
Google News

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার পূর্ব দামোদরপুর গ্রাম থেকে দাফনের ১৮ দিন পর ছকু মিয়া নামে এক ব্যক্তির লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে আদালতের নির্দেশে লাশটি উত্তোলন করা হয়।

গত ৩ জুন প্রতিবশেীর নির্যাতনে ছকু মিয়ার মৃত্যু হয় বলে তার ছেলে মোজাম্মেল হক ১৬ জুন আদালতে মামলা দায়ের করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আদালত লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেন।

মামলার বাদী মোজাম্মেল হক বলেন, প্রেমের সম্পর্কে প্রতিবেশী মন্টু মিয়ার মেয়ে তার সাথে বাড়ি থেকে চলে যান। সেই অপরাধে গত ১৫ মে তার রিকশাচালক বাবা ছকু মিয়াকে মন্টু মিয়া ও তার ভাইয়েরা ধরে নিয়ে রাতভর নির্যাতন করেন। পরে স্থানীয় প্রভাবশালীরা সালিশ বৈঠক করে আমার বাবার ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে গ্রামছাড়ার নির্দেশ দেয়। তখন বাবা গ্রাম ছেড়ে গাজীপুরে আমার কাছে চলে আসেন। মারধরে অসুস্থ শরীর নিয়েও অর্থের জন্য রিকশা চালাতে বাধ্য হন বাবা। পরে রিকশা চালাতে গিয়ে গত ৩ জুন তার মৃত্যু হয়।

বাবাকে হত্যার অভিযোগ এনে তিনি গত ১৬ জুন জ্যেষ্ঠ বিচারক হাকিম আদালতে (সাদুল্যাপুর) মামলা দায়ের করেন। পরে আদালতের বিচারক শবনম মুস্তারী সাদুল্যাপুর থানাকে মামলাটি রেকর্ডভুক্ত করা ও লাশ উত্তোলনসহ প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৩ জুন দিন ধার্য করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাদুল্যাপুর থানার ওসি মো. মাসুদ রানা জানান, আদালতের নির্দেশে লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। লাশ উত্তোলনের সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লোকমান হোসেন এবং পুলিশ ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর