২৮ আগস্ট, ২০২২ ১৯:১৮

যশোরে বিএনপির কার্যালয় ও গাড়ি ভাঙচুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর

যশোরে বিএনপির কার্যালয় ও গাড়ি ভাঙচুর

রবিবার বিকেলে যশোর জেলা বিএনপির কার্যালয়, দলের কেন্দ্রীয় কমিটির খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের গাড়ি ও বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। বিকেল চারটার দিকে শহরের দড়াটানা এলাকায় অমিতের গাড়িতে হামলা চালায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা। এরপর তারা মিছিল সহকারে শহরের লালদীঘী পাড়স্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে যায় এবং ভাঙচুর করে। প্রায় একই সময়ে অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের ঘোপ এলাকার বাসভবনে ইটপাটকেল ছুড়ে ভাঙচুর করে। এসময় বাড়ির বাইরে থাকা একটি প্রাইভেট কার ও তিনটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।  

পরে অনিন্দ্য ইসলাম অমিত তার বাড়িতে সাংবাদিকদের বলেন, শনিবার রাতে পুলিশ বিএনপির ও সহযোগী সংগঠনগুলোর ২৮ নেতা-কর্মীকে আটক করে। রবিবার বিকেলে আদালতে তাদের দেখে তিনি গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে দড়াটানায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা তার গাড়ি ঘিরে ধরে ভাংচুর শুরু করে। গাড়ির চালকের বুদ্ধিমত্তার কারণে তিনি কোনরকমে সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন। অমিত বলেন, যুবলীগ-ছাত্রলীগের একই কর্মীরা দলের জেলা কার্যালয় ও পরে তার বাড়িতেও ভাংচুর করে। অমিত অভিযোগ করেন, হামলার সময় তিনি প্রশাসনকে বিষয়টি জানালেও সবকিছু শেষ হওয়ার পর পুলিশের লোকজন তার বাড়িতে পৌঁছায়। 

এর আগে শনিবার সদর উপজেলার রূপদিয়ায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে হামলা করলে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় বিএনপির বিক্ষুব্ধ কর্মীরা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের একটি জিপ গাড়ি ভাংচুর করে। জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব সাবেরুল হক সাবু বলেন, আজকে এসব ভাঙচুরের কোন কারণ তারা খুঁজে পাচ্ছেন না। তবে তারা ধারনা করছেন, রূপদিয়ার ঘটনার প্রেক্ষিতেই এ হামলা হয়ে থাকতে পারে। তিনি বলেন, আজ ঝিকরগাছায় উপজেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেখানে আওয়ামী লীগও সমাবেশ ডাকায় পুলিশের অনুরোধে আমরা একদিন পিছিয়ে দিয়েছি। এছাড়া রবিবার বিকেলে যশোর প্রেসক্লাবে নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন বিএনপির একটি সংবাদ সম্মেলন ছিল। সেখানে জেলা নেতৃবৃন্দের যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রেসক্লাবে সামনে ছাত্রলীগ কর্মীরা অবস্থান নিয়ে থাকায় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনটি করা যায়নি। 

এদিকে এসব ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, আমি ঢাকাতে আছি। যতদূর জানতে পেরেছি, বিএনপি নিজেরা নিজেরা এসব ঘটিয়ে আওয়ামী লীগের ওপর দোষ চাপাচ্ছে। 

বিডি প্রতিদিন/এএ

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর