শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:০৫

ইসলামের মূল ভিত্তি তাওহিদ

আবদুর রশিদ

ইসলামের মূল ভিত্তি তাওহিদ

ইমানের প্রধান ও অপরিহার্য শর্ত হলো তাওহিদ। মুমিন হতে হলে নিরঙ্কুশভাবে আল্লাহর একাত্মবাদে বিশ্বাস করতে হবে। সর্বশক্তিমান আল্লাহকে তাঁর নামে, গুণে, বৈশিষ্ট্যে ও কাজে এককভাবে বিশ্বাস করা এবং সব ইবাদত একমাত্র তাঁরই জন্য করার নামই তাওহিদ। এ ক্ষেত্রে কোনো ব্যত্যয় হলে বান্দার কোনো ইবাদতই আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না। আল কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘বল, তিনি আল্লাহ এক, অদ্বিতীয়।’ সূরা ইখলাস, আয়াত ১।

অর্থাৎ মহান আল্লাহ এক বা একক সত্তার অধিকারী। সাধারণ অর্থে তাওহিদ হচ্ছে এক করা, এক বানানো, একত্রিত করা, একাত্মের ঘোষণা দেওয়া বা একাত্মে বিশ্বাস করা। আল্লাহকে এক ও অদ্বিতীয় সত্তা হিসেবে মনে-প্রাণে বিশ্বাস করাই তাওহিদ বা একাত্মবাদের মূল কথা। আল্লাহ এক ও অদ্বিতীয় এবং তিনিই একমাত্র সৃষ্টিকর্তা, পালনকর্তা, রিজিকদাতা। তিনি ছাড়া কোনো উপাস্য নেই। আল্লাহর কোনো শরিক নেই। তিনি ছাড়া আর কেউ ইবাদত বা উপাসনার যোগ্য নয়। আল্লাহই একমাত্র সত্তা, যার কাছে মনের আকুতি পেশ করা হয়, প্রয়োজন মেটানোর জন্য সাহায্য প্রার্থনা করা হয়। তিনি ছাড়া কেউই নেই সাহায্য করার। আল্লাহর প্রতি এরূপ বিশ্বাসই হলো তাওহিদ। বিশ্বাস করতে হবে তিনি রাজত্ব, সৃষ্টি, ধনসম্পদ ও কর্তৃত্বের অধিপতি। এ ক্ষেত্রে তাঁর কোনো অংশীদার নেই। এককভাবে তিনিই প্রভু। ইবাদত, আনুগত্য, আশা-ভরসা, সাহায্য ও ফরিয়াদের ক্ষেত্রে অন্য কাউকে তাঁর সঙ্গে অংশীদার করা যাবে না। তিনি মহান গুণাবলির অধিকারী, তাঁর সাদৃশ্য কোনো কিছুই নয়। তিনি সর্বশ্রোতা ও সর্বদ্রষ্টা। আল কোরআনে এ বিষয়টি বার বার স্পষ্ট করা হয়েছে। আল্লাহ বলেন, ‘তোমাদের প্রকৃত ইলাহ অবশ্যই এক ও একক।’ সূরা আস-সাফফাত, আয়াত ৪।

‘তোমাদের ইলাহ হলেন এক ইলাহ।’ সূরা নাহল, আয়াত ২২, সূরা কাহাফ, আয়াত ১১০, সূরা আম্বিয়া, আয়াত ১০৮, সূরা হাজ, আয়াত ৩৪, সূরা ফুসসিলাত, আয়াত ৬।

‘আর তোমাদের উপাস্য হচ্ছেন এক আল্লাহ, তিনি ছাড়া সত্যিকারের কোনো উপাস্য নেই, তিনি পরম করুণাময়, অতিদয়ালু।’ সূরা বাকারা, আয়াত ১৬৩।

‘তুমি বল, আমি তো কেবল একজন সতর্ককারীমাত্র; সার্বভৌম অপ্রতিরোধ্য এক ও একক আল্লাহ ছাড়া সত্য কোনো ইলাহ নেই।’ সূরা সোয়াদ, আয়াত ৬৫। ‘বল, আল্লহই সবকিছুর সৃষ্টিকর্তা, তিনি এক ও একক, মহাপ্রতাপশালী।’ সূরা রাদ, আয়াত ১৬। ‘বল, তিনি আল্লাহ এক ও অদ্বিতীয়। আল্লাহ কোনো কিছুর মুখাপেক্ষী নন, সবই তাঁর মুখাপেক্ষী। তিনি কাউকে জন্ম দেন না, আর তাঁকেও জন্ম দেওয়া হয়নি। তাঁর সমকক্ষ কেউ নেই।’ সূরা ইখলাস, আয়াত ১-৪। আল্লাহ আমাদের সবাইকে তাওহিদে অটুট থাকার তাওফিক দান করুন।

                লেখক : ইসলামবিষয়ক গবেষক।


আপনার মন্তব্য