Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:১৯

ঢাকা সিটি নির্বাচন

সমাজবিরোধীরা যেন মনোনয়ন না পায়

ঢাকা সিটি নির্বাচন

জানুয়ারিতেই রাজধানী ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। চলতি মাসের দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই নির্বাচন তফসিল ঘোষণা করা হবে। সিটি নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেওয়ার আভাস দিয়েছে। ফলে সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজধানীর রাজনীতিতে প্রাণ ফিরে আসবে এমন প্রত্যাশা রাজনীতি সংশ্লিষ্ট মহলের। দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি রাজধানীর নেতা-কর্মীদের মধ্যে প্রাণ সঞ্জীবনী সৃষ্টি করে তা সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়ে নিজেদের স্থবিরতা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করবে এমনটিই স্বাভাবিক। জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য সিটি নির্বাচনে আগের জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চায় আওয়ামী লীগ। এ জন্য দলের নিবেদিত ও জনপ্রিয় যোগ্য নেতা খুঁজছেন তারা। এ নিয়ে আওয়ামী লীগে পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনা চলছে। মেয়র পদে দলীয় প্রার্থী মোটামুটি চূড়ান্ত করে এখন চলছে কাউন্সিলর প্রার্থী বাছাই। এবার কাউন্সিলর পদে একক প্রার্থী মাঠে রাখবে ক্ষমতাসীন দল। ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে বর্তমান মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন ছাড়াও অর্ধডজন নেতা মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নের লড়াইয়ে ব্যস্ত। একই অবস্থা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনেও। বর্তমান মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম ছাড়াও অর্ধডজন নেতা নৌকা প্রতীক পেতে চান। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাছাইয়ের জরিপ শুরু করেছে। কে কোথায় জনপ্রিয়, দলের জন্য নিবেদিত তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রতিকূল পরিবেশেও ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে সর্বাত্মকভাবে লড়বে বিএনপি। দুই সিটির জন্য দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত পর্যায়ে। উত্তর সিটিতে মেয়র পদে বিএনপির আগের প্রার্থী তাবিথ আউয়ালকে এরই মধ্যে সংকেত দেওয়া হয়েছে। দক্ষিণেও ‘সবুজ সংকেত’ দেওয়া হয়েছে অবিভক্ত ঢাকা সিটির সর্বশেষ মেয়র মরহুম সাদেক হোসেন খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেনকে। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না থাকায় সমাজবিরোধী অনেকের পক্ষে কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হওয়া সম্ভব হয়েছে। দেশের দুই বৃহত্তম সিটি করপোরেশনের মর্যাদায় আঘাত হেনেছে সমাজবিরোধীদের দলীয় মনোনয়ন দেওয়া ও নির্বাচিত করে আনার ঘটনা। আমরা আশা করব আসন্ন সিটি নির্বাচনে সে ভুল থেকে সব রাজনৈতিক দল দূরে থাকবে। মাস্তান ও সমাজবিরোধীদের বদলে সাচ্চা প্রার্থীদের মনোনয়ন দেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য