Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ ০০:০০

পল্লবীতে যুবলীগ কর্মী মতিঝিলে প্রবাসী খুন

পল্লবীতে যুবলীগ কর্মী মতিঝিলে প্রবাসী খুন

বার ঘণ্টার ব্যবধানে রাজধানীতে যুবলীগ কর্মী ও প্রবাসী খুন হয়েছেন। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পল্লবী এলাকায় শাহ আলী রকি (৩২) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পল্লবী ৭ নম্বর সেকশনের ২ নম্বর রোডের রবিন ক্লাবের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানিয়েছে, খুনের মোটিভ সম্পর্কে পুলিশ এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি। ঝুট ব্যবসা, দলীয় কোন্দল ও ব্যক্তিগত কোনো দ্বন্দ্বের জের ধরে হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তার পরিবারের অভিযোগ, রকির ঘনিষ্ঠ লোকজনই তাকে হত্যা করেছে। শান নামে রকির এক বছরের একটি সন্তান রয়েছে। তার বাবা মতিউর রহমান খোকন স্থানীয় ৯২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে রকি ছোট ছিল। তাদের বাড়ি কুমিল্লার নবীনগর থানার জামশেদপুর গ্রামে। রকি ছিলেন পল্লবী ৯২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। পুলিশের মিরপুর বিভাগের ডিসি ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, যুবলীগ নেতা রকি খুনের পেছনে ঝুট ব্যবসা, দলীয় কোন্দল বা ব্যক্তিগত কোনো দ্বন্দ্ব থাকতে পারে। এই তিনটি বিষয় সামনে রেখে তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। নিহতের ফুফাতো ভাই আমিনুল ইসলাম সাগর জানান, রকি যুবলীগের সহ-সভাপতি ছাড়াও ঝুট ও গ্রিল ব্যবসায়ী ছিলেন। সকাল সোয়া ১০টার দিকে পল্লবী মিল্ক ভিটা ৫ নম্বর রোডস্থ সেকশন-৭ এর ৮৩৫ নম্বর বাসা থেকে বের হন রকি। পায়ে হেঁটে কিছুদূর (২ নম্বর রোডস্থ রবিন ক্লাবে) গেলে আগে থেকে ওৎপেতে থাকা চারজন মুখোশধারী যুবক তার পথরোধ করে। তারা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্দক জখম করে। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের বোন রুমি জানান, রকির শ্বশুর দুলালের সঙ্গে স্থানীয় নাজু গ্রুপের দ্বন্দ্ব ছিল। গত এক সপ্তাহ আগে নাজু গ্রুপের সুন্না ও মুন্না রকির শ্বশুরের গলায় কাটাচামচ দিয়ে আঘাত করে। রকির মধ্যস্থতায় সে ঘটনার মীমাংসা হয়। ওই ঘটনার জের ধরে রকিকে হত্যা করা হতে পারে। এ ছাড়া স্থানীয় মনির গ্রুপও এ ঘটনা ঘটাতে পারে বলে তিনি ধারণা করছেন। নিহতের খালাতো বোন ডলি জানান, মিরপুর বেড়িবাঁধ এলাকায় শীর্ষ সন্ত্রাসী মাহাদি (৩৮) পুলিশের ক্রসফায়ারে নিহত হয়। মাহাদির লোকজনের ধারণা, রকি পুলিশের কাছে মাহাদিকে ধরিয়ে দেয়। ওই ঘটনার জের ধরে মাহাদির লোকজন তাকে খুন করতে পারে।

পোল্যান্ড প্রবাসীকে গুলি করে হত্যা : মতিঝিলে নটরডেম কলেজের সামনে সাবি্বর আহমেদ (২০) নামে এক পোল্যান্ড প্রবাসীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। হাসপাতাল সুত্র জানায়, রাতে নটরডেম কলেজের সামনে দিয়ে বাসায় ফিরছিলেন সাবি্বর। এ সময় মোটর সাইকেলযোগে অজ্ঞাত দুই দুর্বৃত্ত সাবি্বরের গতিরোধ তরে। পরে খুব কাছ থেকে তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়। এতে তিনি মারাত্দক আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় স্থানীয় জনতা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। জানা গেছে, সাবি্বর মুগদা এলাকায় থাকতেন। পুলিশের মতিঝিল বিভাগের ডিসি আশরাফুজ্জামান জানান, বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর