শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ জুলাই, ২০১৯ ২৩:৫৬

শেয়ারবাজারে বিক্ষোভ

সূচক নামল পাঁচ হাজার পয়েন্টের নিচে, দরপতন ঠেকাতে তদন্ত কমিটি, তার পরও ঠেকানো যাচ্ছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক

শেয়ারবাজারে বিক্ষোভ

অব্যাহত পতনের কারণে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫ হাজার পয়েন্টের নিচে নেমে  গেছে। দরপতনের কারণ খুঁজতে কর্তৃপক্ষের তদন্ত কমিটি গঠনের পরদিন গতকাল ৬৭ পয়েন্ট কমেছে সূচক। মাত্র দুদিনে সূচক কমল দেড়শ’ পয়েন্টের বেশি। দরপতনের এই ভয়াবহতায় আতঙ্কিত বিনিয়োগকারীরা বিক্ষোভ করেই চলেছেন।

ডিএসইএক্স ৬৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৯৬৬ পয়েন্টে। যা ডিএসইতে ২ বছর ৭ মাস বা ৬২৫ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বনিম্ন। টানা পতনের কারণ অনুসন্ধানে রবিবার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে। এই কমিটি গঠনের পরেও বড় ধরনের দরপতন হয়েছে। অন্যদিকে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে টানা দরপতনের ঠেকাতে

প্রধানমন্ত্রী বরাবর ১৫ দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি জমা দেওয়ার পর আন্দোলন স্থগিত করেছিলেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। কিন্তু গতকালের দরপতনে ফের রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছেন তারা। মতিঝিলে ডিএসই ভবনের সামনে মানববন্ধন  করেছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। গতকাল লেনদেনে অংশ নেওয়া ৭৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দর কমেছে। ব্যাংক খাতে শেয়ার দর কমেছে ৫৭ শতাংশের। তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের মধ্যে ১৭টি দর হারিয়েছে। শেয়ার দর সবচেয়ে বেশি কমেছে ডাচ-বাংলা ও রূপালী ব্যাংকের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কমেছে ব্র্যাক ব্যাংকের এবং তৃতীয় ব্যাংক এশিয়া, সিটি, শাহজালাল ইসলামী ও  স্যোসাল ইসলামী ব্যাংক। ডিএসইতে ৩৬৪ কোটি ১৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। ৩৫৩টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২৭৭টির বা ৭৮ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। দর বেড়েছে ৬০টির বা ১৭ শতাংশের এবং ১৬টি বা ৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৯৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ২১৫ পয়েন্টে।

সিএসইতে হাতবদল হওয়া ২৮৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে  শেয়ার দর বেড়েছে ৫১টির, কমেছে ২১৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির দর।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর