শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৭ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ মার্চ, ২০২০ ২৩:১৪

উদ্বিগ্ন কূটনীতিক ও বিদেশিরা ঢাকা ছাড়ছেন

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় ঢাকা ছাড়ছেন বাংলাদেশে দায়িত্ব পালনরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের পরিবার ও বিভিন্ন কাজে বাংলাদেশে থাকা বিদেশিরা। মালয়েশিয়া ও ভুটানের ৩৬৫ নাগরিক গতকাল তিনটি আলাদা ফ্লাইটে ঢাকা ছেড়েছেন। আজ ফেরত যাচ্ছেন সাড়ে চার শ শ্রীলঙ্কান নাগরিক। ফেরার প্রস্তুতিতে আছেন ইউরোপের বিভিন্ন দেশের ৫ শতাধিক বিদেশি নাগরিকও। তারা বিশেষ বিমানে ঢাকা ছাড়বেন যে কোনো সময়। বাংলাদেশে সংক্রমণের আশঙ্কার পাশাপাশি আক্রান্তদের চিকিৎসা নিয়ে শঙ্কিত বিদেশিরা। মূলত সীমিতসংখ্যক পরীক্ষা ও হাসপাতালের অপ্রস্তুত দশা নিয়েই তারা উদ্বিগ্ন।

জানা যায়, গতকাল ভুটানের দ্রুক এয়ারের দুটি ফ্লাইটে দেশটির ১২৪ নাগরিক ভুটানে ফিরে গেছেন। এর মধ্যে ভুটানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দুই ছেলে ছাড়া বাকি সবাই ভুটানের নাগরিক। ভুটানিজদের মধ্যে পেশাজীবী ও শিক্ষার্থীও রয়েছেন। কোনো কূটনীতিক ও কূটনীতিকের পরিবারের কোনো সদস্য নেই। ভুটান দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স গণমাধ্যমকে জানান, এখনো দূতাবাসের কোনো কর্মী ফেরেননি। তবে তারাও উদ্বিগ্ন, এখানে ভাইরাসটির সংক্রমণ কতটা ভয়ঙ্কর হয়, সেই শঙ্কায়। দূতাবাসের সবাই এখনো সুস্থ ও নিরাপদে আছেন বলে সরকারকে জানিয়েছে ভুটান মিশন। এর আগে বুধবার মধ্যরাতে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইনসের একটি বিশেষ ফ্লাইটে দেশটির প্রায় ২৩০ জন নাগরিক ঢাকা থেকে দেশে ফিরে গেছেন। এরা সবাই ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থী, বিভিন্ন সেবাদানকারী সংস্থায় কর্মরত। শুরুতে ওই ফ্লাইটে ২২৫ জনের যাওয়ার কথা ছিল। পরে বিমানবন্দরে উপস্থিত মালয়েশিয়ার আরও পাঁচ নাগরিক ওই ফ্লাইটে ঢাকা ছেড়ে যান। শ্রীলঙ্কার প্রায় সাড়ে চার শ নাগরিকও আগামী দু-এক দিনের মধ্যে ঢাকা ছাড়তে পারেন।

গত মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজপক্ষেকে বাংলাদেশে শ্রীলঙ্কা অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে শ্রীলঙ্কার আগ্রহী নাগরিকদের বাংলাদেশ থেকে কলম্বো যাওয়ার অনুমতি চাওয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্টের অনুমতি পেলে শ্রীলঙ্কার নাগরিকরা আজ থেকে রবিবারের মধ্যে কলম্বো যেতে আগ্রহী।

ঢাকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, এ মুহূর্তে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) দেশগুলোর ৬০০ নাগরিক বাংলাদেশে কাজ করছেন। তাদের একটি অংশও ঢাকা ছাড়তে চান। এ নিয়ে ঢাকায় ইইউ দেশের কূটনীতিকরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেছেন। এ সময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ইউরোপের কূটনীতিকদের বলা হয়েছে, যে কোনো দেশ চাইলে ভাড়া করা উড়োজাহাজে তাদের নাগরিকদের ঢাকা থেকে দেশে নিয়ে যেতে পারে। তবে যে উড়োজাহাজ ঢাকায় আসবে, সেটিকে কোনো যাত্রী ছাড়াই ঢাকায় আসতে হবে। এ ক্ষেত্রে সব সহযোগিতা দেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর