শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ মার্চ, ২০২১ ২৩:২৪

সিরাজুল আলম খানের শেষ ইচ্ছা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিরাজুল আলম খানের শেষ ইচ্ছা

রাজনীতির রহস্যপুরুষ সিরাজুল আলম খানের শেষ ইচ্ছাটা অন্যরকম। সম্প্রতি প্রকাশিত ‘প্রতিনায়ক : সিরাজুল আলম খান’ শীর্ষক বইতে তার ইচ্ছার কথা লিখেছেন বইটির লেখক গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ। লেখককে এক সাক্ষাৎকারে শেষ ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক সিরাজুল আলম খান। বইতে মহিউদ্দিন আহমদ লিখেছেন, বেশ কিছুদিন আগে আমি তার (সিরাজুল আলম খান) কাছে গিয়েছিলাম। সঙ্গে ছিলেন সুমন মাহমুদ। তিনি কিছু কথা বলার আগ্রহ দেখালেন। সুমনকে বললেন রেকর্ড করতে। যথারীতি এর ভিডিও হলো। তিনি তার শেষ ইচ্ছার কথা বললেন। ‘আমার মৃত্যুর পর কোনো শোকসভা হবে না। শহীদ মিনারে ডিসপ্লে হবে না লাশ। যত দ্রুত সম্ভব নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে আমার গ্রামের বাড়িতে পাঠাতে হবে মরদেহ, যা ঢাকা থাকবে একটা কাঠের কফিনে। মায়ের একটা শাড়ি রেখে দিয়েছি। কফিনটা শাড়িতে মুড়ে মাটিতে পুঁতে ফেলতে হবে, মায়ের কবরে।’

ষাটের দশকে স্বাধীন বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ছাত্রলীগের যে ‘নিউক্লিয়াস’ আলোচিত ছিল, তার উদ্যোক্তা ছিলেন সিরাজুল আলম খান। তাকে অনেকে ‘দাদাভাই’ নামে ডাকত। স্বাধীনতার পর আওয়ামী লীগ ভেঙে জাসদ গঠনের উদ্যোক্তাও ছিলেন তিনি। সিরাজুল আলম খান সচরাচর জনসম্মুখে আসেন না এবং কোনো বক্তৃতা-বিবৃতি দেন না। দীর্ঘদিন যুক্তরাষ্ট্রে থেকে সিরাজুল আলম খান সম্প্রতি দেশে ফেরেন। বার্ধক্যে উপনীত সিরাজুল আলম খান রাজধানীর কলাবাগানে ভাইদের বাসায় ওঠেন। লেখক মহিউদ্দিন আহমেদ লিখেছেন. সিরাজুল আলম খান লেখালেখি করে সময় কাটান। তার লেখা বিদ্বজ্জনের টেবিলে ঠাঁই পায় না। এ নিয়ে তার ভ্রুক্ষেপ নেই। তার গুরু ও ঘনিষ্ঠজনেরা অনেকেই দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন। একদিন তিনিও চলে যাবেন। প্রকৃতির এটাই নিয়ম।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর