শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ জুন, ২০২১ ২৩:৪৩

গাজীপুর চাঁদপুরে দুই ব্যবসায়ীকে পুড়িয়ে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক ও চাঁদপুর প্রতিনিধি

Google News

পাওনা ২০ লাখ টাকা চাওয়ায় গার্মেন্টস ব্যবসায়ী আহসান হাবিবকে (৫৫) পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

এর আগে গত ৭ মে সন্ধ্যায় সাভারে বিভিন্ন দোকান থেকে পাওনা টাকা আদায়ের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হন আহসান হাবিব। এরপর থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। পরদিন ৮ মে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে মারা যান তিনি।

গতকাল রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর জানান, আহসান হাবিবকে গত ৭ মে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার হরিণহাটি এলাকার একটি বাসার নিচতলায় আগুনে দগ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় ব্যক্তিরা শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে আসেন। পরদিন তিনি মারা যান। অন্যদিকে তিনি পরিবারের কাছে নিখোঁজ অবস্থায় ছিলেন।

এই নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর গত ১১ মে আহসান হাবিবের লাশ শনাক্ত করে তার পরিবার। এরপর তার শ্যালক জাকারিয়া বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনার পর থেকে সিআইডি ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং জড়িত আসামির অবস্থান শনাক্ত করে। গত ৭ জুন রাতে গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকা থেকে আসামি নুরুন নবী ওরফে রনিকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি বলেন, নুরুন নবীর কাছে নিহত ব্যবসায়ী আহসান হাবিব ২০ লাখ টাকা পেতেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ব্যবসায়িক বিরোধ চলছিল। সেই বিরোধের জেরে রনি তার আরও তিন সহযোগী নিয়ে আহসান হাবিবকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন।

চাঁদপুরে ব্যবসায়ীকে আগুনে পুড়িয়ে

হত্যা : চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নে জমি দখলে বাধা দেওয়ার জেরে ইকবাল মাহমুদ খোকন নামে এক ব্যবসায়ীর গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। ৯দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর  সোমবার খোকন রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট মৃত্যুবরণ করেন। গতকাল দুপুরে নিহত খোকনকে পশ্চিম সকদি খান বাড়িতে জানাজা শেষে দাফন করা হয়েছে। খোকন আব্বাস খান বাড়ির মৃত রুস্তম খানের ছেলে।

 

চাঁদপুর পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ বলেন, ঘটনাটি আমরা জেনেছি। তবে ওই ব্যক্তিকে পেট্রল দিয়ে আগুনে পোড়ানো হয়েছে, তা জানা ছিল না।  কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি। অভিযোগ দিলে অবশ্যই আমরা ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খুব দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসতাম।

নিহতের ছেলে মঞ্জুর খান বলেন, তার ফুফুদের সম্পত্তি নিয়ে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী  দেলোয়ার খানের বিরোধ চলে আসছিল। ওই সম্পত্তি দখল করতে গেলে তার বাবা খোকন বাধা দেন। পরে গত ৩০ মে সন্ধ্যায় দুর্বৃত্তরা তার বাবার দোকানে অস্ত্র নিয়ে হামলা এবং পেট্রল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার বাবার শরীরের অধিকাংশ পুড়ে যায়। বাড়ির লোকজন তাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এবং রাতেই রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার মৃত্যুবরণ করেন। নিহতের চাচাতো বোন রোকেয়া বেগম বলেন, তার ভাই তাদের সম্পত্তি দখলে বাধার জেরে গায়ে  পেট্রল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। আমরা  লোমহর্ষক এই ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এই বিভাগের আরও খবর